,

টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ে বিজিবি-মাদক কারবারি গুলাগুলি : ইয়াবা, দেশীয় অস্ত্রসহ আটক-২

টেকনাফে বিজিবি-মাদক কারবারি গুলাগুলি : ইয়াবা, দেশীয় অস্ত্রসহ আটক-২

মুহাম্মদ জুবাইর,টেকনাফ : টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং লম্বাবিলের বেঁড়িবাঁধ এলাকায় বিজিবির সাথে মাদক কারবারিদের গুলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনা দু’বিজিবির সদস্য আহত ও ইয়াবা, অস্ত্রসহ ২ মাদক কারবারি কে আটক করেছে বিজিবি।

সুত্রে জানা যায়, ০৫ মে (বুধবার) দিবাগত রাতে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধীনস্থ উনচিপ্রাং বিওপির একটি বিশেষ টহলদল
লম্বাবিল এলাকা দিয়ে ইয়াবা পাচারের গোপন সংবাদ পেয়ে দ্রুত গমন করতঃ বেড়ীবাঁধের আঁড় নিয়ে গােপনে অবস্থান গ্রহণ করে। কিছুক্ষণ পর গভীর রাতে ৩/৪ জন দুষ্কৃতিকারী ব্যক্তিকে ০১ টি ব্যাগ নিয়ে নাফ নদী পার হয়ে লম্বাবিল বেড়ীবাঁধের উপরে আসতে দেখে। মাদক কারবারিরা বিজিবির সতর্ক অবস্থান বুঝতে পেরে সশস্ত্র ইয়াবা পাচারকারীরা অতর্কিতভাবে বিজিবি কে লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করতে থাকে। এসময়
০২ (দুই) জন বিজিবি সদস্য আহত হয়। বিজিবি’ও সরকারী সম্পদ এবং নিজেদের জান ও মাল রক্ষার
স্বার্থে কৌশলগত অবস্থান নিয়ে পাল্টা গুলি বর্ষণ করে। উভয় পক্ষের মধ্যে প্রায় ০২-০৩ মিনিট গুলি বিনিময় হয়। এই সময়ে ০২ জন ইয়াবা কারবারী আহত অবস্থায় ০১টি পলিথিনের ব্যাগসহ টহলদলের নিকট ধৃত হয় এবং অন্য দুষ্কৃতিকারীরা রাতের অন্ধকারের সুযােগ নিয়ে নদীতে লাফ দিয়ে সাঁতরিয়ে মিয়ানমারের দিকে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আটককৃত চোরাকারবারীদের কাছে রক্ষিত পলিথিনের ব্যাগ তল্লাশী করে ব্যাগের ভিতর হতে ১০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ধৃত ইয়াবা কারবারীদের নিকট হতে ০১ (এক) টি দেশীয় তৈরী বন্দুক (এলজি) এবং ধৃত স্থান হতে ০১ (এক) টি গুলির খালি খােসা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। আটককৃতরা হলেন হোয়াইক্যং লম্বাবিলের মােঃ নুর আলমের পুত্র মোঃ আমির হোসেন ডায়লা (৩০), নুর আহমদের পুত্র মোঃ আজিজ উল্লাহ (৩০)।
টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) অধিনায়ক,
লেঃ কর্ণেল মােহাম্মদ ফয়সল হাসান খান (বিজিবিএম, পিএসসি) সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আহত বিজিবি সদস্যদের টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আটক মাদককারবারির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা দায়ের করে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*