,

টেকনাফে ৫ ইউপি’র নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ

আমান উল্লাহ কবির ::

টেকনাফের ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে
হাজার হাজার কর্মী, সমর্থক ও প্রার্থীদের উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রথম ধাপের এই নির্বাচনে সকাল ৯টা থেকে শুরু করে বিরতিহীন সন্ধ্যা সোয়া ৭টা পর্যন্ত চলে প্রতিদন্ধী প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রার্থীগণ প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে মিছিল—শ্লোগানে আনন্দ উল্লাসে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ ত্যাগ করেন।
এ উপলক্ষ্যে জনসমাগম ছিল খুব বেশী। উপজেলা পরিষদ থেকে স্টেশন পর্যন্ত ছিল লোকারণ্য। এমনকি সড়কে যানবাহন চলাচল বন্দ হয়ে যায়। হেঁটে চলাচল করাও দুঃসাধ্য হয়ে উঠে। খবর পেয়ে দুপুরে টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম ও ইউএনও পারভেজ চৌধুরীর নেতৃত্বে পৃথকভাবে জনসমাগম ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা চালান এবং উপজেলা পরিষদের প্রধান ফটক বন্দ করে দেয়া হয়।
নব—নির্মিত উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্টিত হয় ৫ শতাধিক প্রতিদন্ধী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ। সাধারণ ওয়ার্ডে প্রার্থীদের পছন্দের প্রতীক ছিল ফুটবল, সংরক্ষিত নারী আসনে মাইক এবং চেয়ারম্যান পদে আনারস। এই প্রতীকগুলো বেশী প্রার্থীগণ দাবী করায় লটারীর মাধ্যমে নিষ্পত্তি করতে বেশী সময় লেগে যায়। তাছাড়া প্রার্থীর সংখ্যাও ছিল তুলনামুলক বেশী।
এদিকে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের ৩নং সাধারণ ওয়ার্ডের মেম্বার পদপ্রার্থী শাহ আলমকে বেসরকারীভাবে বিনা প্রতিদন্ধিতায় মেম্বার ঘোষণা করা হয়েছে।
টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ বেদারুল ইসলাম জানান, উক্ত ওয়ার্ডে তিনি একজন মাত্র মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। বাছাইয়ে তাঁর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছিল। নির্ধারিত তারিখে তিনি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করা এবং অন্য কোন প্রতিদন্ধী প্রার্থী না থাকায় টেকনাফ সদর ইউনিয়নের ৩নং সাধারণ ওয়ার্ডের মেম্বার পদপ্রার্থী শাহ আলমকে বিনা প্রতিদন্ধিতায় মেম্বার ঘোষণা করা হয়েছে।
প্রতীক বরাদ্দ নেয়া ৩০ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীরা হলেন ১নং হোয়াইক্যং ইউনিয়নে আজিজুল হক (নৌকা), আলমগীর চৌধুরী (মোটরসাইকেল), আবদুল্লাহ (হাতপাখা), নুর আহমদ আনোয়ারী (চশমা), মোঃ ফরিদুল আলম (আনারস), মোট ৫ জন।
২নং হ্নীলা ইউনিয়নে আলী হোছাইন (আনারস), কামাল উদ্দিন আহমদ (মোটরসাইকেল), নুরুল হোছাইন (হাতপাখা), বর্তমান চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী (নৌকা), মোট ৪ জন।
৩নং টেকনাফ সদর ইউনিয়নে আবু ছৈয়দ (নৌকা), দিদার মিয়া (রজনীগন্ধা), নুরুল আবসার (ঢোল), মোঃ আবদুল্লাহ (টেবিল ফ্যান), মোঃ ফারুক আলম (অটোরিক্সা), শাকের আহমদ (ঘোড়া), শাহজাহান মিয়া (চশমা), হাফেজ আহমদ (টেলিফোন), হোছাইন আহমদ (হাতপাখা), আবদুর রহমান (আনারস), জিয়াউর রহমান জিহাদ (মোটরসাইকেল) ও আবদুল ওয়াজেদ (লাঙ্গল), মোট ১২ জন।
৪নং সাবরাং ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান নুর হোসেন (আনারস), নুরুল হক (চশমা), সোনা আলী (নৌকা), হাবিবুর রহমান (মোটরসাইকেল), মোট ৪ জন।
৬নং সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউনিয়নে আবদুর রহমান (চশমা), নুর আহমদ (মোটরসাইকেল), মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান (নৌকা), মোঃ জাহিদ হোসেন (আনারস), মোট ৫ জন। ৫নং বাহারছরা ইউনিয়নে এবারে নির্বাচন অনুষ্টিত হচ্ছেনা।
উল্লেখ্য, আগামী ১১ এপ্রিল উক্ত ৫টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্টিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*