,

“সৃষ্টিকর্তাকে অনুধাবন”

“সৃষ্টিকর্তাকে অনুধাবন”
মো: আদিল মাহমুদ
বিধাতা সৃষ্টি করেছে, সুখ প্রশান্তি দিয়েছে,
তবু কেন বিশ্ব আজ ক্লান্ত!
কেন করে অপরাধ, কিসে নেই প্রাণবোধ,
কবে হবে নর ভূ-তে ক্ষান্ত?
জীবন খুব সীমিত, স্রষ্টার দান অমৃত,
পূণ্য বিনা নাহি দেখা প্রান্ত,
ইহকাল অতি অল্প, ন্যায় নীতি নিত্য স্বল্প,
অর্থ বিত্ত সব হবে ভ্রান্ত।
যে দিয়েছে এ পরাণ, কর তার গুণগান,
ঈশ ছাড়া নেই কোন পথ,
সব রাস্তা হবে বন্ধ, হয়ে যাবে চির অন্ধ,
রবের তরে নত শপথ।
বাঁচার ক্ষত মরণ, দুষ্কর্ম করে সৃজন,
সাজা কভু নহে হবে শ্লথ,
ক্ষমা চাওয়া ফরজ, করতে থাক আরজ,
হোমো পৃথ্বীতে আজ অপথ।
তোমার সব সম্বল, তৈরি করবে গরল,
কুকর্মে ধরা হয়েছে ভার,
চারিদিকে দেখ ছাই, পাতকের অন্ত নাই,
পূণ্য ছাড়া দেখবে আঁধার।
নিশীতে কর প্রার্থনা, নিয়তে আন কল্পনা,
জড় কর নেকের বাহার,
কি ভাবে আসবে ক্ষমা, তুমি যে ভুলের ঝামা,
ন্যায় করে হতে হবে পার।
অন্ধত্ব মোচন কর, ইলাহির রথ ধর,
মানব সেবায় গড় পণ।
লোক আজ অসহায়, ধনবান ক্ষমতায়,
বন্ধ কর শান্তি ভঙ্গ রণ।
অসহায়ের বিশ্বাস, জাতিসংঘের আশ্বাস,
নিঃস্বকে দিও না তিক্ত মন,
অনুধাবন মহান, দয়া পূণ্যের সমান,
ভুল স্বীকারে বাঁচাও জন।
লেখক: ইন্সপেক্টর (তদন্ত)
পরশুরাম মডেল
থানা, ফেনী জেলা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*