,

করোনা ভাইরাস – সরকারী নির্দেশনা ও চিকিৎসকদের উপদেশ মেনে চলুন … ডাঃ প্রণয় রুদ্র

মো. আশেক উল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ:
টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর কর্মরত মেডিসিন, মহিলা ও শিশু রোগের অভিজ্ঞ মেডিকেল অফিসার (জুনিয়র কনসালটেন্ট, মেডিসিন প,বি) ডাঃ প্রণয় রুদ্র করোনা ভাইরাস এবং আমাদের প্রতিকার করনীয় ও এ ওয়ার্নেস সম্পর্কে বলেছেন, করোনা ভাইরাস এটি একটি আন্তর্জাতিক ডিজেষ্টার। ক্রমেই ধেয়ে আসছে, এই মহামারী ভাইরাস। এটি প্রথমে চিন থেকে উৎপত্তি হয়েছে। সরকার করোনা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে সর্বসাধারনকে সচেতন করতে কঠোর প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছে। করোনা ভাইরাস একটি ঝঁকিপুর্ণ মরণব্যাধী এর থেকে নিবারনের উপায় গণ সচেতনতা ও সরকারের নীতি নির্ধারক পর্যায়ে আরোপিত নির্দেশনা অনুযায়ী জীবন যাপন করতে হবে। এই জন্য সকল নাগরিকদের ব্যক্তিগত, সমাজ এবং রাষ্ট্রীয় জীবনে এই মরন ব্যাধী করোনা ভাইরাস রোগ থেকে বাঁচতে হলে সবাইকে সামাজিক সচেতনা মূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে একযোগে কাজ করতে হবে।
প্রতিনিয়িত বাসা বাড়ী ও আঙ্গিনা পরিস্কার পরিচ্চন্নতা, স্বাস্থ্য ও পরিবেশ সম্মত উপায়ে জীবন পরিচালনা করতে হবে। বৈজ্ঞানিক বিশেষজ্ঞদের মতে অতিরিক্ত ঠান্ডা জনিত কারনে এই রোগের উৎপত্তি। তিনি আরো বলেন, এই রোগের প্রাথমিক লক্ষন সর্দি, কাশি, হাঁচি, জ্বর, শ্বাস কষ্ট ও গলাব্যাথা। এর করনীয় সম্পর্কে তিনি বলেন এসময় ঘরেই অবস্থান, প্রচুর পানি পান, মাস্ক ব্যবহার, শাক সবজি, ফল, ডাব, লেবুর শরবত পান এবং পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা। সুতরাং এটি একটি সংক্রমণ ব্যধী এবং এই রোগ থেকে বাঁচতে হলে প্রাত্যহিক সাবান দিয়ে হাত মুখ ধৌত ও বেশী বেশী, তরল জাতীয় খাবার ও ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খেতে হবে। এতে রোগ প্রতিরোধমূলক চারটি উপায় রয়েছে, যেমন- ভালো ঘুম, মানষিক চাপ কমিয়ে রাখা, নিয়মিত ব্যায়াম করা, ভিটামিন এ , বি, সি ও ই যুক্ত খাবার খাওয়া। এছাড়া নিজকে সন্দেহভাজন মনে হলে স্ব-উদ্যোগে কোয়ারান্টাইনে থাকতে হবে। এ বিষয়টি যেন লুকিয়ে না রাখি। যদি লুকিয়ে রাখি এটি যেহেতু সংক্রমণ রোগ সে হিসাবে আপনি একজনের কারনে পুরো পরিবার বা আশপাশের অনেকে আক্রান্ত হবার আশংকা রয়েছে।
দেশ-বিদেশ থেকে আসা তাদেরকে অবশ্ব্যই কোয়ারেন্টাইন ও হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে যেতে হবে। এ ক্ষেত্রে কার্যকরী ভুমিকা পালন করে আসছে সরকার। বিশেষ করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যাদের মধ্যে নেই, তারা বেশির ভাগ ভাইরাস রোগের আক্রান্তের আশংকা রয়েছে। এজন্য বেশী করে ভিটামিন এবং পুষ্টি জাতীয় খাদ্য সেবনের পাশাপাশি সচেতন হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*