,

করোনা – কর্ণফুলীতে নিজের দেওয়া ফতোয়া নিজেই মানেন নি !

নিজস্ব প্রতিনিধি চ্রট্রগ্রাম::

চট্রগ্রামের কর্ণফুলীতে নিজের ফতোয়া নিজেই মানতে নারাজ এমন কান্ড ঘটিয়েছে একশ্রেনীর গোষ্টি।  করোনা ভাইরাস সংক্রামন থেকে বাঁচতে অন্যকে  মাস্ক বিতরণ করলেও নিজেরই মাস্ক পড়েনি। এনিয়ে হাস্যরস সৃষ্টি হয়েছে। এমন আচরণ দেখেই স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা বলাবলি করছে কোন যুগেই আসলাম নিজের ফতোয়াই নিজেই মানে না।

সুত্র জানায়, করোনা ভাইরাসের প্রকোপ এড়াতে সকল ধরণের জনসমাগম এড়িয়ে চলার রাষ্ট্রীয় ঘোষণা থাকলেও চট্টগ্রাম কর্ণফুলীতে দলবল নিয়ে মাস্ক বিতরণ করতে গিয়ে তারা কর্ণফুলীতে ঘটিয়ে বসেছেন আরেক বিপত্তি।

বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানা যায়, বিশ্বজুড়ে মহামারী আকার ধারণ করেছে নভেল করোনাভাইরাস ডিজিজ বা কভিড-১৯। এ ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সব ধরনের জনসমাগম বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে সরকার। মুজিব বর্ষের অনুষ্ঠানসূচিতে পরিবর্তনসহ সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে জনসমাগম বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে মাসব্যাপী আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে এর বিপরীত চিত্র কর্ণফুলী উপজেলায়। করোনাভাইরাসের ঝুঁকি উপেক্ষা করে কর্ণফুলীতে জনসমাগমের মাধ্যমে নেতাকর্মী নিয়ে লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করেছেন। বিতরণের সময় যারা মাস্ক বিতরণ করছেন তাদের কয়েজন ছাড়া আর কারো মুখেই ছিল না কোনো মাস্ক। মাস্ক বিতরণ শেষে কর্ণফুলী উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বানাজা বেগম নিশি ও উপজেলা শ্রমিক লীগের সাবেক সহসভাপতি মামুন ভূঁইয়ার ফেসবুক আইডিতে ছবি পোস্ট হলে সেখানে ছবিগুলো দেখা যায়। এমন কাণ্ডে কর্ণফুলীতে শুরু হয়েছে আলোচনা-সমালোচনা। শুক্রবার (২০ মার্চ)রাতে উপজেলার ব্রীজঘাট এলাকায় জনসাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরণ করে উপজেলার শীর্ষ নেতারা। ফেইসবুক লিখেন, “নিজেই সতর্ক হোন এবং অন্যদের সতর্ক করতে মাননীয় ভূমি মন্ত্রী আলহাজ্ব সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ ভাইয়ের নির্দেশনায় কর্ণফুলী উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফারুক চৌধুরীর ও কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব হায়দার আলী রনি ভাইদের পক্ষে সাধারণ জনগণদের সচেতন মূলক আদেশ ও ম্যাক্স বিতরণ ও লিফলেট বিতরণ।” মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বানাজা বেগম নিশির নেতৃত্বে উপস্থিত ছিলেন মো আবুল কাসেম ভূইয়া,সেলিম উদ্দীন চৌধুরী,মো সাইফুল, ফারুখ হোসাইন, আবদুল মাবুদ বাবুল,নাজিম উদদীন,আমিনুল ইসলাম,আবদুন নবী,আরশাদ আরশাফি প্রমূখ। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বানাজা বেগম নিশি বলেন, বিশ্বব্যাপী মহামারী আকার ধারণ করা করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে মাস্ক বিতরণ করেছি। মাস্কের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বেশিরভাগ সময়ই তারা সবাই মাস্ক পরা ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*