,

হ্নীলার লেদায় ওরশের নামে মদ জুয়ার আসর ; রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা!

জসিম উদ্দিন টিপু::

টেকনাফের হ্নীলার লেদায় ওরশ শরীফের নামে প্রকাশ্যে চলছে মদ-জুয়ার আসর৷ বিষয়টিতে স্থানীয় এলাকাবাসী এবং ওরশ শরীফ পরিচালনা কমিটির মধ্যে যে কোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিয়েছে৷ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা জরুরী ভিত্তিতে উক্ত ওরশ শরীফ বন্ধের দাবী জানিয়েছেন ৷

পশ্চিম লেদা চনাপাড়া এলাকার কবির আহমদ,গবী সুলতান, জকির জানান,স্থানীয় মৃত শামসুল আলমের পুত্র ঢোল ফকির এজাহার মিয়া,নুরু ও ইসলাম মিয়ার নেতৃত্বে ওরফ শরীফ আয়োজন করা হচ্ছে৷ যা আগামী পরশু আয়োজনের সব প্রস্তুতি চলছে৷ আয়োজক ঢোল ফকিররা এলাকার চিহ্নিত মাদক সেবী এবং জুয়া খোর৷ এলাকাবাসী কমিউনিটি পুলিশের সহযোগীতায় বিভিন্ন সময় তাদেরকে মদ ও গাঁজাসহ আটক করেন৷ এদিকে উপরোক্ত ঢোল ফকিররা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ভূল বুঝিয়ে ওরশ শরীফ আয়োজনের অনুমতি নিয়েছে বলে জানাগেছে৷ তবে এই ওরশ শরীফের নামে বেহায়াপনা বন্ধ করতে এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন৷ ইতিমধ্যে স্থানীয়রা মদ-জুয়ার আসর বন্ধে ইউএনও বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন৷

হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও লেদা এলাকার কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি মৌলভী মোহাম্মদ মিয়া জানান,ওরশের নামে মদ জুয়ার আসর কিছুতেই চলতে দেওয়া হবেনা৷ তিনি ওরশ শরীফের নামে মদ ও গাঁজার আসর যে কোন মূল্যে প্রতিহত করবেন বলেন জানান৷ স্থানীয় মেম্বার মর্জিনা আক্তার জানান,ওরশের নামে ধর্ম বিরোধী কর্মকান্ড করা যাবেনা৷ তিনি তা বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন৷ এই ব্যাপারে জানতে হ্নীলা ইউপির চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলীর মুঠোফোনে বেশ কয়েকবার যোগাযোগ করা হয়৷ তিনি মোবাইল রিসিভ না করায় তাঁর বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি৷

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সাইফ বলেন,ধর্মের নামে অশ্লীলতা করতে দেওয়া হবেনা৷ তিনি আরো বলেন,অভিযোগ পেলে উক্ত মদ-জুয়ার আসর ভেঙ্গে দেওয়া হবে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*