,

এনজিওতে চাকুরীর নামে স্বজনপ্রীতি সহ্য করা হবে না, স্থানীয়দের অগ্রাধিকার দিতে হবে…. টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম

মোঃ আশেক উল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ ::

রোহিঙ্গা অধ্যুষিত টেকনাফ উপজেলার শিক্ষিত বেকার যুবকদের এনজিওতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চাকরিতে নিয়োগ দিতে হবে। রোহিঙ্গা আসার পর থেকে টেকনাফবাসী ভোগান্তি ও ক্ষতির সম্মুখীন। তাদের কারনে নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত স্থানীয়রা। বিশেষ করে স্থানীয়দের যতটুকু সাহায্য সহযোগীতা দেওয়ার কথা তা কিঞ্চিত পরিমানও পূরণ করছেনা এনজিওগুলো।
টেকনাফ স্থল বন্দরে দৈনিক প্রায় ৫’শ জন রোহিঙ্গা শ্রমিক কাজ করেন। স্বল্প মজুরিতে রোহিঙ্গারা বন্দরে কাজ করায় দেশীয় শ্রমিকরা সেখানে কাজ পায়না। শিগগিরই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এনজিও চাকুরীর নামে স্বজনপ্রীতি ও আত্মীয়করণ করা হচ্ছে। কিছু কুচক্রী এনজিও সংস্থা স্বল্প বেতনে তাদের ভ্যানগার্ড হিসেবে কাজ করার জন্য রোহিঙ্গাদের অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে। তা মেনে নেয়া যায়না। স্থানীয়দের চাকরির নামে প্রতারণা বা বৈষম্য করেছেন তাও আমাদের নজরে এসেছে। ব্যবসা-বাণিজ্য থেকে শুরু করে সমস্ত কিছু রোহিঙ্গাদের কারণে স্থানীয়রা ভুক্তভোগী। আগামীতে প্রতিটি যোগ্যতা সম্পন্ন শিক্ষিত যুবক যেন চাকরি পায় সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখুন। কর্মস্থলে টেকনাফের কেউ অসদাচরণ করলে তার দায় আমি নেব, তারপরেও তাদের চাকরির ব্যবস্থা করুন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত দেশ গড়তে স্থানীয় যোগ্যতা সম্পন্ন বেকারদের চাকরিতে নিয়োগ দিতে হবে।
৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টার দিকে টেকনাফ উপজেলা মিলনায়তনে মাসিক এনজিও সমন্বয় সভায় এসব উপরোক্ত কথাগুলো বলেন, টেকনাফ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল আলম।
টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*