,

সেন্টমার্টিনে ট্যুরিষ্ট পুলিশের সাব জোন, মোটরবাইকে টইল জোরদার

এম,জুবাইর হোছাইন, সেন্টমার্টিন থেকে :

নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলা ভুমি প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনে ভ্রমণ কারী ট্যুরিষ্টদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য ট্যুরিষ্ট পুলিশের সাব জোন স্হাপন করা হয়েছে। ট্যুরিষ্ট পুলিশের সদস্য সংখ্যা কম হলেও নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে আছে সেন্টমার্টিনদ্বীপ।

জানা যায়, বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যটন এলাকায় ভ্রমনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য সরকার কর্তৃক ট্যুরিষ্ট পুলিশের কার্যক্রম থাকে। তারই ধারাবাহিকতায় বিশ্বের একমাত্র কোরাল আইল্যান্ড সাগর বেষ্টিত সেন্টমার্টিন দ্বীপে দেশি- বিদেশী হাজার হাজার পর্যটক ঘুরতে আসেন।বিশেষ করে নভেম্বর মাস থেকে আবহাওয়া অনুকূল থাকা পর্যন্ত ৮ টি পর্যটকবাহী জাহাজ টেকনাফ – সেন্টমার্টিন নৌপথে যাতায়াত করেন।পুরোদ্বীপটি পর্যটকে মুখরিত হয়।মুলত পর্যটকের নিরাপত্তা দেওয়া ট্যুরিষ্ট পুলিশের প্রধান কাজ। ট্যুরিষ্টদের সব ধরনের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করার জন্যে ট্যুরিষ্ট পুলিশ নিয়োজিত থাকবেন।

উল্লেখ্য,  ৩ ই নভেম্বর থেকে পূর্ব পাড়াস্হ ৬ নং ওয়ার্ডে অবস্থিত হোটেল ভাড়া নিয়ে সেন্টমার্টিন ট্যুরিষ্ট পুলিশের কার্যক্রম শুরু হয়।

সেন্টমার্টিনে ট্যুরিষ্ট পুলিশের সাব জোন স্হাপনের পর থেকে সেন্টমার্টিন জেটি,দ্বীপের বিভিন্ন বীচ দর্শনীয়স্হান গুলোতে ট্যুরিষ্ট পুলিশের সদস্যরা মোটরবাইক দিয়ে টইল দেওয়া শুরু করেছে।শুধু দিনে নয় রাত্রেও ট্যুরিষ্ট পুলিশ মোটরবাইক দিয়ে দ্বীপে বিভিন্ন এলাকা ও বীচে টইল জোরদার করেছে। একজন এস,আই ও এ,এস,আই এর নেতৃত্বে ৪ জন পুলিশ সদস্যসহ মোট ৬ জন ট্যুরিষ্ট পুলিশ সেন্টমার্টিনকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে রাখবেন।

ঢাকা সাভার থেকে আগত পেশায় দোকানদার মোহাম্মদ সাজ্জাদ জানান সেন্টমার্টিনে ট্যুরিষ্ট পুলিশের টইল দেখে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। নির্বিঘ্নে বীচে, বিভিন্ন দর্শনীয় স্হানে ঘুরতে আর ভয় নাই। এতে সমস্ত ভ্রমণ পিপাসু নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে থাকবে।

সেন্টমার্টিন ট্যুরিষ্ট পুলিশ সাব জোনের ইনচার্জ এস,আই মিজান জানান, আগত দেশী-বিদেশী পর্যটকের নিরাপত্তা দেওয়া ট্যুরিষ্ট পুলিশের প্রধান কাজ।আমরা সংখায় কম হলেও সেন্টমার্টিন কে নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে রাখছি। প্রত্যকদিন সকালে,দুপুরে, রাতে মোটর বাইক দিয়ে বীচে,দর্শনীয় স্হানে টইলে থাকে সেন্টমার্টিন ট্যুরিষ্ট পুলিশ। ট্যুরিষ্টদের য়ে কোন ঘটনা মোকাবেলা করতে বদ্ব পরিকর।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ জানান, সেন্টমার্টিনে ট্যুরিষ্ট পুলিশের ক্যাম্প স্হাপনে আগত পর্যটকের নিরাপত্তা আরো একধাপ এগিয়ে গেলো। সবাই নিরাপত্তার ভিতরে থেকে সেন্টমার্টিন ভ্রমণ শেষ করতে পারবেন।এবং ট্যুরিষ্ট পুলিশ দ্বীপের বিভিন্ন এলাকায় মোটর বাইক দিয়ে টইল দিচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*