,

বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন চেয়ারম্যানের ইপসা’র কার্যক্রম পরিদর্শন

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকনাফ ::

?

টেকনাফ পৌরসভার জালিয়াপাড়ায় শিশু পাচার প্রতিরোধ, শিশু শ্রম, শিশু শোষণ, শিশু যৌন নির্যাতন ও বাল্যবিবাহ ইত্যাদি বিষয়ে “ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল এ্যাকশন (ইপসা)’র এক মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়েছে। প্লান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের সহযোগিতায় গত ২২ নভেম্বর (শুক্রবার) গ্রাম ভিত্তিক শিশু সুরক্ষা কমিটি, ইয়ুথ ক্লাব সদস্য এবং কিশোর-কিশোরীদলের সদস্যদের নিয়ে উক্ত মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। ইপসা কর্তৃক বাস্তবায়িত “চিলড্রেন আর নট ফর সেল” প্রকল্পের একটি উল্লেখযোগ্য কর্মসূচী হিসাবে টেকনাফ উপজেলার জালিয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন পৌরসভার কমিশনার নাজমা আলম। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সিনিয়র সচিব এবং বাংলাদেশ এনজিও ফেডারেশন (বিএনএফ) চেয়ারম্যান হেদায়েতুল্লাহ আল-মামুন। ইপসা’র উন্নয়ন কর্মী আবু ছালেহ মোঃ নুরুচ্ছাপা, বিলকিস জান্নাত এবং সেলিম উল্লাহ সার্বিক তৎপরতায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রকল্প সমন্বয়কারী রোকন উদ্দিন আহমেদ। ইপসা’র সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মোঃ আবু সিদ্দিক, নুরুল আলম ও জহুরা বেগম শিশু সুরক্ষা কমিটির সদস্য মোঃ ইয়াছিন এবং মোছাম্মৎ কুলছুমা বেগম। চিলড্রেন আর নট ফর সেল প্রকল্পের আওতায় গ্রামভিত্তিক শিশু সুরক্ষা কমিটির সদস্যবৃন্দ, ইয়ুথ ক্লাবের সদস্য ও কিশোর-কিশোরী দলের সদস্যরা উক্ত সভায় অংশগ্রহণ করেন। তারা শিশু পাচার প্রতিরোধে গৃহীত পরিকল্পনা অনুযায়ী বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের মাধ্যমে ব্যাপক গণজাগরণ সৃষ্টি ও সচেতনতা বৃদ্ধির কাজকে এগিয়ে নিতে সহমত পোষণ করেন।
উক্ত মতবিনিময় সভায় শিশু পাচার প্রতিরোধ, শিশুর অধিকারসহ মানব পাচার, শিশু শ্রম, শিশু যৌন নির্যাতন, শিশু শোষণ, বাল্যবিবাহ, যৌতুক, পারিবারিক সহিংসতা এবং নির্যাতন ইত্যাদি বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। সভায় মোঃ আবু সিদ্দিক বলেন- টেকনাফ জালিয়াপাড়া একটি অনগ্রসর ও প্রত্যন্ত এলাকা। অনেক এনজিওর ন্যায় ’ইপসা’ এখানে শিশুর উন্নয়ন এবং শিশু অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে। এখানে শিশুরা শোষণ, নির্যাতন ও নিপীড়নের যেন কোনভাবেই শিকার না হয় সেই লক্ষ্যে আমাদেরকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।
ইয়ুথ ক্লাবের সদস্য মোঃ নেজাম উদ্দিন বলেন- ‘ইপসা’ শিশু সুরক্ষা তথা শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছে। আমরা সকলেই এই জন্য কৃতজ্ঞ। শিশু পাচার সংক্রান্ত নাটক ও র্শট ফিল্ম শো প্রদর্শন ও প্রচারনার মাধ্যমে অবশ্যই জনসচেতনতা বাড়াতে হবে। ইপসা’র সহকারী পরিচালক মোঃ শহিদুল ইসলাম প্রধান অতিথির দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, “অনগ্রসর ও প্রান্তিক এলাকায় শিশু শ্রম, শিশু শোষণ, শিশু নির্যাতন,নারী ও শিশু পাচার এবং অবশ্যই শিশু বিবাহ নির্মুলে ‘ইপসা’ গ্রাম পর্যায়ে বিভিন্ন কমিটি ও দল তৈরি করে ঐক্যবদ¦্যভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মীবৃন্দের সমনি¦ত উদ্যোগে বাস্তবায়িত বিশাল কার্যক্রমে প্রধান অতিথির সুদৃষ্টি কামনা করি।”
প্রধান অতিথি হেদায়েতুল্লাহ আল-মামুন বলেন, “সমাজ থেকে শিশু শ্রম, শিশু শোষণ, শিশু নির্যাতন,নারী ও শিশু পাচার এবং অবশ্যই শিশু বিবাহ নির্মুলে ঐক্যবদ¦্যভাবে কাজ করতে হবে। তবেই শিশুর উন্নয়ন ও বিকাশ সম্ভব হবে। তিনি আরো বলেন- এ কার্যক্রমের সাথে আগামীতে আমরা আরো সম্পৃক্ত হতে চাই, সেই লক্ষ্যে আমরা সকলেই কাজ করে যাবো।”
আলোচনা সভার সভাপতি নাজমা আলম বলেন- “চিলড্রেন আর নট ফর সেল প্রকল্প” শিশুদের উন্নয়নে অনেক ভাল কাজ করে যাচ্ছে। শিশু শ্রম নিরসন, শিশু পাচার এবং বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে এ কার্যক্রমে আমরা সকলেই অংশীদার হতে চাই। উক্ত সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইপসা’র মাহমুদ উল্লাহ, রুহুল্লাহ খাঁন কামাল, মোবারক হোসেন, আনিছুর রহমান, আবু রাসেদ ও উম্মে হাবিবা প্রমূখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*