,

বেরোবিতে কর্মচারীদের অবরোধের প্রতিবাদে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ

নিজস্ব সংবাদদাতা ::

দাবি মানার পরও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের একটি অংশের ক্যাম্পাসে মাসব্যাপী আন্দোলনের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। আজ বুধবার (৩১ জুলাই ২০১৯) দুপুর ১২ টায় একাডেমিক ভবনের সংযোগ সড়কে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

টানা ষষ্ঠ দিনের মানববন্ধনে বিশ^বিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী অংশ নেয়। মানববন্ধন থেকে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের দাবি পূরনের পরও অন্যায়ভাবে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রশাসন বন্ধ রাখার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। এই সময় তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের আন্দোলনে ইন্ধনদাতাদেরও বিচার দাবি করেন শিক্ষক ও কর্মকর্তারা। এ সময় তাঁরা কর্মচারীদের আন্দোলন থেকে সড়ে নিজ নিজ কাজে যোগদানের আহবানও জানান ।

উল্লেখ্য, কর্মচারীদের পদোন্নতি নীতিমালা প্রণয়ন, ৪৪ মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধ করার দাবিতে কর্মচারীরা আন্দোলন করলেও। বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন গত ১১ জুলাই-এ অনুষ্ঠিত ৬২তম সিন্ডিকেট সভায় কর্মচারীদের পদোন্নতি নীতিমালা প্রণয়ন এবং অনুমোদন করা ছাড়াও ৪৪ মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধের নীতিগত সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যেই গ্রহণ করা হয়েছে। ২০১৩ সালে অধ্যাপক ড. মু. আব্দুল জলিল মিয়া উপাচার্য থাকাকালে অননুমোদিত পদে নিয়োগ পাওয়া ৩৩৮ জন কর্মকর্তা কর্মচারীর বেতন বন্ধ ছিল। তবে তাঁদের মধ্যে উক্ত ৫৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী বাদে অন্যান্যদের বেতন পূর্বেই পরিশোধ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*