,

টেকনাফে পুলিশের সাথে গুলাগুলিতে ৩মানব পাচারকারী নিহত: আহত- ২


মুহাম্মদ জুবাইর:
টেকনাফে পুলিশের সাথে মানব পাচারকারীদের আবারও গুলাগুলির ঘটনা ঘটেছে ৷ ২৫জুন ভোররাত ২: ৫০মিনিটের দিকে মেরিনড্রাইভ সংলগ্ন সাগর উপকূলের টেকনাফ সদরের মহেষখালিয়া পাড়া নৌকা ঘাটে গুলাগুলির (বন্দুকযুদ্ধের ) ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায় ৷ এঘটনায় ২পুলিশ সদস্য আহত ও ঘটনাস্থল হতে ৩ টি এলজি (আগ্নেয়াস্ত্র) ১৫ রাউন্ড শর্টগানের তাজা কার্তুজ ও ২০টি কার্তুজের খোসা উদ্ধার করা হয় । পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ২৫ জুন ভোররাত পৌনে ৩টার দিকে টেকনাফ সদরের মহেষখালিয়া পাড়া নৌকা ঘাটে মানবাপাচারকারীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান চালায় ৷ এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মানব পাচার কারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে ৷ গুলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থল থেকে ১৫ জন রোহিঙ্গা পাচার মামলার পলাতক অাসামি, সাবরাং ( নয়াপাড়া ) গোলাপাড়ার বাসিন্দা আব্দুর শুক্করের পুত্র কুরবান আলী(৩০), টেকনাফ পৌরসভা কে কে পাড়ার আলী হোসেনের পুত্র আব্দুল কাদের (২৫) ও সুলতান আহমদের পুত্র আব্দুর রহমান (৩০) কে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতলে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয় ৷
টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি) প্রদীপ কূমার দাশ জানান, টেকনাফ মহেসখালিয়া পাড়া নৌঘাটে মানবপাচার কারীদের আটক করতে গেলে তাদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে ৷ এতে এএসআই/ সায়েফ কং৪৩৭ মং এবং কং/৫০০ মোঃ শুককুর আহত হয়।
পুলিশ ও পালটা গুলি ছুড়লে গোলাগুলিতে আসামি মানব পাচারকারী কুরবান আলী(৩০), আব্দুল কাদের (২৫) ও আব্দুর রহমান (৩০) গুলিবিদ্ধ হয়। ঘটনাস্থল হতে ৩ টি এলজি (আগ্নেয়াস্ত্র) ১৫ রাউন্ড শর্টগানের তাজা কার্তুজ ও ৩। ২০টি কার্তুজের খোসা উদ্ধার করা হয় । অাহত অাসামিদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাঃ তাদের মৃত ঘোষণা করেন। উক্ত ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করার প্রক্রিয়া রয়েছে বলেও জানান ৷

মতামত...