,

চট্টগ্রাম কারাগারের ৩২ নম্বর সেলে ‘ঠাণ্ডা মাথার খুনি’ অমিত মুহুরীকে কুপিয়ে খুন

ডেক্স নিউজ:

চট্টগ্রাম কারাগারে রাতে সংঘটিত এক সংঘর্ষে চট্টগ্রামের আলোচিত সন্ত্রাসী অমিত মুহুরী খুন হয়েছেন। ২৯ মে ইফতারের পরপরই চট্টগ্রাম কারাগারের ৩২ নম্বর সেলে এই ঘটনা ঘটেছে। হত্যামামলায় গ্রেপ্তার হয়ে অমিত মুহুরী দীর্ঘদিন ধরে কারাগারের ৩২ নম্বর সেলে ছিলেন। ওই সেলে আরেক সন্ত্রাসী রিপন নাথের সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। এতে একপর্যায়ে দুজনের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় রিপন নাথ ধারালো অস্ত্র দিয়ে অমিত মুহুরীকে উপর্যুপরি আঘাত করলে তিনি গুরুতরভাবে আহত হন। এ সময় তার মাথা দিয়ে প্রচণ্ডভাবে রক্তপাত হচ্ছিল বলে চট্টগ্রাম কারাগারের অভ্যন্তরীণ সূত্রগুলো জানিয়েছে। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা ৩০ মে রাত ১টা ৪৫ মিনিটে অমিত মুহুরীকে মৃত ঘোষণা করেন।

সংঘর্ষের সূচনা ইফতারের পর
কারাগার সূত্রে জানা যায়, বুধবার ইফতারের পরই সন্ত্রাসী অমিতের সঙ্গে রিপন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। কী নিয়ে সংঘর্ষের সূচনা তা কেউই নিশ্চিত করে বলতে পারেনি। এ সময় সন্ত্রাসী রিপন তার মাথায় অসংখ্য আঘাত করে। কারা কর্তৃপক্ষ শুরুতে নিজেদের বাঁচাতে ঘটনাটি আড়াল করার চেষ্টা করে। এতে প্রাথমিকভাবে কারাগারে চিকিৎসা দিয়ে গোপনে অমিতকে সুস্থ করার চেষ্টা চালান কারা হাসপাতালের চিকিৎসকরা। কিন্তু অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ বন্ধ করতে ব্যর্থ হয়েই কারাগারে হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে চমেক হাসপাতালের নেওয়ার পরামর্শ দেন। কারাগার থেকে অমিতকে রাত ১১টায় বের করা হয়। আর ততক্ষণে অমিতের মৃত্যু হয়।

মৃত্যুর আগে মাথায় ৩০টি সেলাই

অমিত মুহুরীর মাথায় প্রায় ৩০টি সেলাই করা হয়।
অমিত মুহুরীর মাথায় প্রায় ৩০টি সেলাই করা হয়।

চট্টগ্রাম কারাগারের জেলার নাছির উদ্দিন চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘অমিত মুহুরী দীর্ঘদিন ধরে কারাগারের ৩২ নম্বর সেলে ছিলেন। ওই সেলে থাকা অপর আসামি রিপন নাথের সাথে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে অমিতকে আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। রিপন নাথ অস্ত্র মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারের ৩২ নম্বর সেলে রয়েছে।’

চমেক হাসপাতাল ফাঁড়ির এএসআই শীলাব্রত বড়ুয়া চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে জানান, রাত ১১টা ২০ মিনিটে অমিত মুহুরীকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হলে তাকে নিউরোসার্জারি বিভাগের ২৮ নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসকরা ৩০ মে রাত ১ টা ৪৫ মিনিটে অমিত মুহুরীকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাত ২টায় চমেক হাসপাতাল নিউরোসার্জারি বিভাগের ২৮ নং ওয়ার্ডের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মো. খুরশিদ আনোয়ার চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘অমিত মুহুরীর মাথায় লৌহজাত ধাতুর বড়ো রকমের আঘাত ছিল। তার মাথায় প্রায় ৩০টি সেলাই করা হয়।’

মতামত...