,

বুমরাহর জোড়া আঘাতে চাপে বাংলাদেশ


বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম



বিশ্বকাপের আগে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ।

বুমরাহর জোড়া আঘাত

ভালো শুরু পাওয়া বাংলাদেশকে চাপে ফেলে দিলেন জাসপ্রিত বুমরাহ। দ্রুত রান তোলার চেষ্টায় থাকা সৌম্য সরকারকে থামানোর পর দুর্দান্ত ইর্য়কারে ফিরিয়ে দিলেন সাকিব আল হাসানকে।

অফ স্টাম্পের বাইরের বল ঠিক মতো খেলতে পারেননি সৌম্য। ভেতরের কানায় লেগে সহজ ক্যাচ যায় দিনেশ কার্তিকের গ্লাভসে। ২৯ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ২৫ রান করে ফিরেন সৌম্য। ভাঙে ৪৯ রানের জুটি।

পরের বলে দুর্দান্ত এক ডেলিভারতে বোল্ড হয়ে ফিরে যান সাকিব। গতিময় ডেলিভারিরে বিপক্ষে খুব বেশি কিছু করার ছিল বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের।

১০ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ৪৯/২। ক্রিজে লিটনের সঙ্গী মুশফিকুর রহিম।

সৌম্য-লিটনের ব্যাটে বাংলাদেশের ভালো শুরু

ওপেনিংয়ে নামেননি তামিম ইকবাল। সৌম্য সরকারের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধন করেছেন লিটন দাস। বড় রান তাড়ায় দুই তরুণ বাংলাদেশকে এনে দিয়েছেন ভালো শুরু।

দেখেশুনে খেলছেন লিটন। রানের চাকা সচল রাখার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন সৌম্য। একটু ঝুঁকি নিয়ে শট খেলছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। প্রথম ওভারে মোহাম্মদ শামির বলে হাঁকিয়েছেন চার ও ছক্কা। চতুর্থ ওভারে জাসপ্রিত বুমরাহর ওভারে পরপর দুটি চার।

৫ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ৩৩/০। সৌম্য ২৩ ও লিটন ৮ রানে ব্যাট করছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
 
ভারত: ৩৫৯/৭ (রোহিত ১৯, ধাওয়ান ১, কোহলি ৪৭, রাহুল ১০৮, শঙ্কর ২, ধোনি ১১৩, পান্ডিয়া ২১, কার্তিক ৭*, জাদেজা ১১*; মুস্তাফিজ ১/৪৩, মাশরাফি ০/২৩, সাইফ ১/২৭, রুবেল ২/৬২, আবু জায়েদ ০/৪১, সাকিব ২/৫৮, মিরাজ ০/৪০, মোসাদ্দেক ০/৩২, সাব্বির ১/৩০)

রাহুল-ধোনির সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের সামনে বিশাল লক্ষ্য
 
বোলিংয়ে শুরুর সাফল্য ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। লোকেশ রাহুল ও মহেন্দ্র সিং ধোনিকে সেভাবে ভাবাতে পারেননি বোলাররা। দাপুটে ব্যাটিং সেঞ্চুরি করেন দুই ব্যাটসম্যান, উপহার দেন দেড়শ ছাড়ানো জুটি। ভারতকে এনে দেন ৭ উইকেটে ৩৫৯ রানের বড় সংগ্রহ। 
 
ভালো করেছেন পেসাররা। একটি করে উইকেট নেন সাইফ উদ্দিন ও মুস্তাফিজুর রহমান। একটু খরুচে বোলিং করা রুবেল হোসেন নেন দুই উইকেট। 
 
ঝড় বয়ে গেছে স্পিনারদের উপর দিয়ে। ইনিংসের শেষ দিকে দুটি উইকেট নেওয়া সাকিব আল হাসান ৬ ওভারে দেন ৫৮ রান। মেহেদী হাসান মিরাজ ৫ ওভারে ৪০ রান দিয়ে উইকেটশূন্য। অনিয়মিত লেগ স্পিনার সাব্বির রহমান ৩০ রানে নেন একটি উইকেট।

সেঞ্চুরি করা ধোনিকে ফেরালেন সাকিব
 
দলকে সাড়ে তিনশ রানের কাছে নিয়ে ফিরলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। সেঞ্চুরি করা এই কিপার-ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে নিজের দ্বিতীয় উইকেট নিলেন সাকিব আল হাসান। 
 
৫০তম ওভারে বেরিয়ে এসে বাঁহাতি স্পিনারকে ওড়াতে চেয়েছিলে ধোনি। ব্যাটে-বলে করতে পারেননি। ফিরে যান বোল্ড হয়ে। ৭৮ বলে সাত ছক্কা ও আট চারে ১১৩ রান করেন ধোনি। 

ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ধোনির সেঞ্চুরি
 
টপ অর্ডারের ব্যর্থতায় লম্বা সময় ব্যাটিংয়ের সুযোগ এসেছিল মহেন্দ্র সিং ধোনির সামনে। সুযোগ দারুণভাবে কাজে লাগিয়েছেন এই কিপার ব্যাটসম্যান। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ছয় ছক্কা ও আট চারে ৭৩ বলে তুলে নিয়েছেন সেঞ্চরি। 
 
আবু জায়েদ চৌধুরী ছক্কা হাঁকিয়ে তিন অঙ্কে যান ধোনি। ৪০ বলে ছুঁয়েছিলেন পঞ্চাশ। পরের পঞ্চাশ এলো ৩৩ বলে। তার তাণ্ডবে বড় লক্ষ্য দিচ্ছে ভারত।
 
৪৯ ওভারে ভারতের স্কোর ৩৪৮/৬। ধোনি ১১৩ ও দিনেশ কার্তিক ৭ রানে ব্যাট করছেন।
 
পান্ডিয়াকে ফেরালেন সাকিব

দ্রুত রান তোলার চেষ্টায় থাকা হার্দিক পান্ডিয়াকে ফেরালেন সাকিব আল হাসান।
 
প্রথম স্পেলে খরুচে ছিলেন সাকিব। ৪৮তম ওভারে বোলিং ফিরেও ছিলেন খরুচে। পান্ডিয়ার কাছে হজম করেন ছক্কা ও চার। এই ওভারে লাইন-লেংথ নিয়ে লড়াই করতে হচ্ছিল তাকে। বোলিং শুরু করেছিলেন ওয়াইড-বাউন্ডারি দিয়ে।
 
তৃতীয় বল করতে গিয়ে পান্ডিয়াকে করেন টানা দুটি ওয়াইড। পরের বলটি ছিল স্টাম্পে, লং অন দিয়ে উড়াতে চেয়েছিলেন ভারতীয় অলরাউন্ডার। সীমানা পার করতে পারেননি, চমৎকার ক্যাচ মুঠোয় নেন সাব্বির রহমান। ১১ বলে ২১ রান করে ফিরে যান পান্ডিয়া।
 
৪৮ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ৩২৭/৬। ক্রিজে মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গী দিনেশ কার্তিক।

ধোনিকে জীবন দিলেন লিটন

সীমানায় খানিটা এগিয়ে ছিলেন লিটন দাস। পিছিয়ে গিয়ে চেষ্টা করেছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনির ক্যাচ মুঠোয় নেওয়ার। হাত ছোঁয়াতে পেরেছিলেন কিন্তু ক্যাচ জমাতে পারেননি। যে শটে আউট হতে পারতেন ভারতের কিপার ব্যাটসম্যান সেই শটে পান বাউন্ডারি।

৪৬ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ২৯৫/৫। ধোনি ৮৮ ও হার্দিক পান্ডিয়া ৯ রানে ব্যাট করছেন।

রাহুলকে থামালেন সাব্বির

সেঞ্চুরির পর বেশিক্ষণ টিকলেন না লোকেশ রাহুল। বোল্ড করে ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানকে থামালেন সাব্বির রহমান।

ভারতের চার নম্বরে একজন ব্যাটসম্যানের সন্ধান হয়তো শেষ হলো রাহুলকে দিয়ে। ব্যাকআপ ওপেনার হিসেবে দলে সুযোগ পাওয়া এই ব্যাটসম্যান মিডল অর্ডারে দেখালেন নিজের সামর্থ্য। শুরুর ধাক্কা সামাল দিয়ে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে ফিরেলন।

লেগ স্পিনার সাব্বিরকে শাফল করে খেলতে চেয়েছিলেন রাহুল। ব্যাটে খেলতে পারেননি, বল আঘাত হানে স্টাম্পে।

৯৯ বলে ১২ চার ও চার ছক্কায় ১০৮ রান করে ফিরেন রাহুল। ভাঙে তার সঙ্গে মহেন্দ্র সিং ধোনির ১৬৪ রানের জুটি।

৪৪ ওভারে ভারতের সংগ্রহ ২৬৮/৫। ক্রিজে ধোনির সঙ্গী হার্দিক পান্ডিয়া।

রাহুলের সেঞ্চুরি

দারুণ ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন লোকেশ রাহুল। ৪৫ বলে পঞ্চাশ ছুঁয়েছিলেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান, রান তিন অঙ্কে যায় ৯৪ বলে। এই সময়ে তার ব্যাট থেকে এসেছে ১২টি চার ও তিনটি ছক্কা। পঞ্চম উইকেটে মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে তার জুটির ছাড়িয়েছে দেড়শ।

৪২ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ২৫৫/৪। রাহুল ১০০ ও ধোনি ৬৫ রানে ব্যাট করছেন।

ঝড় তুলে ধোনির ফিফটি
 
মহেন্দ্র সিং ধোনি ক্রিজে যাওয়ার সময় চাপে ছিল ভারত। কিপার-ব্যাটসম্যানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে উড়ে গেছে সেই চাপ। ধোনি ও লোকেশ রাহুল উল্টো চাপে রেখেছেন বাংলাদেশের বোলারদের। 
 
বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে ৪০ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন ধোনি। এই সময়ে তার ব্যাট থেকে আসে পাঁচটি চার ও দুটি ছক্কা।
 
৩৭ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ২২৮/৪। রাহুল ৮১ ও ধোনি ৫৮ রানে ব্যাট করছেন।  
 
রাহুল-ধোনি জুটিতে একশ
 
স্লগ সুইপ করে মেহেদী হাসান মিরাজকে ছক্কায় ওড়ালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি, তিন অঙ্ক স্পর্শ করল লোকেশ রাহুলের সঙ্গে তার পঞ্চম উইকেট জুটির রান।   
 
ধোনি-রাহুলের ব্যাটে সরে গেছে চাপ। দ্রুত এগোচ্ছে ভারত। শুরুর ধাক্কা সামাল দিয়ে বড় সংগ্রহের পথে রয়েছে বিরাট কোহলির দল। 
 
৩৬ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ২১৪/৪। রাহুল ৭৯ ও ধোনি ৪৬ রানে ব্যাট করছেন।  

আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে রাহুলের ফিফটি
 
বিরাট কোহলির বিদায়ের পর বোলারদের ওপর চড়াও হওয়া লোকেশ রাহুল তুলে নিয়েছেন ফিফটি।  
 
এমনিতে রাহুল ওপেনার। তবে বিশ্বকাপে ব্যাট করতে পারেন চার নম্বরে। বাংলাদেশ ম্যাচে দেখালেন সুযোগ পেলে তিনি প্রস্তুত। ৪৫ বলে ৭ চার ও এক ছক্কায় পঞ্চাশ স্পর্শ করেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। 
 
২৬ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ১৩৫/৫। রাহুল ৫১ ও মহেন্দ্র সিং ধোনি ৫ রানে ব্যাট করছেন।

রুবেলের দ্বিতীয় শিকার শঙ্কর

দলের সংগ্রহ তিন অঙ্ক ছোঁয়ার পরপরই বিজয় শঙ্করকে হারালো ভারত। রুবেল হোসেনের বলে মুশফিকুর রহিমকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।  

রুবেলের অফ স্টাম্পের বাইরের শর্ট বল পাঞ্চ করতে চেয়েছিলেন শঙ্কর। ঠিকমতো খেলতে পারেননি। ব্যাটের কানা ছুঁয়ে জমা পড়ে মুশফিকের গ্লাভসে। ৭ বলে দুই রান করে ফিরেন শঙ্কার। 

২২ ওভার শেষে ভারতের সংগ্রহ ১০২/৪। ক্রিজে লোকেশ রাহুলের সঙ্গী মহেন্দ্র সিং ধোনি।

বোল্ড করে কোহলিকে থামালেন সাইফ

কঠিন সময় পার করে সবে শট খেলতে শুরু করেছিলেন বিরাট কোহলি। এমন সময়ে দারুণ এক ডেলিভারিতে ভারত অধিনায়ককে বোল্ড করে থামালেন মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন।

স্টাম্পে থাকা ইয়র্কার লেংথের বল ফ্লিক করতে চেয়েছিলেন কোহলি। ব্যাটে খেলতে পারেননি, বুট ছুঁয়ে এলোমেলো করে দেয় স্টাম্পস। ৪৬ বলে পাঁচ চারে ৪৭ রান করে ফিরেন ভারত অধিনায়ক। 

১৯ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ৮৩/৩। ক্রিজে লোকেশ রাহুলের সঙ্গী বিজয় শঙ্কর।  

এসেই রুবেলের আঘাত
 
বোলিংয়ে এসেই আঘাত হেনেছেন রুবেল হোসেন। বোল্ড করে ফিরিয়ে দিয়েছেন রোহিত শর্মাকে। 
 
টাইমিং করতে ভুগছিলেন রোহিত। অনেকটা সময় ক্রিজে কাটালেও ছিলেন না স্বচ্ছন্দ। ডানহাতি ওপেনার রুবেলের শর্ট বল পুল করতে চেয়েছিলেন। ব্যাটের কানায় লেগে বল এলোমেলো করে দেয় স্টাম্পস। 
 
এক চারে ৪২ বলে ১৯ রান ফিরেন রোহিত। ভাঙে ৪৫ রানের জুটি। 
 
১৪ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ৫০/২। ক্রিজে বিরাট কোহলির সঙ্গী লোকেশ রাহুল। 

মাশরাফি-মুস্তাফিজের আঁটসাঁট বোলিং
 
দারুণ লাইন-লেংথে বোলিং করে রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলিকে বেঁধে রেখেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও মুস্তাফিজুর রহমান। 
 
১০ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ৩৪/১। রোহিত ১৫ ও কোহলি ১৬ রানে ব্যাট করছেন।  
 
দুটি মেডেন নেওয়া মাশরাফি ৫ ওভারে দিয়েছেন মোটে ১৩ রান। শিখর ধাওয়ানকে ফেরানো মুস্তাফিজ ৫ ওভারে দিয়েছেন ১৯ রান।

শুরুতেই মুস্তাফিজের ছোবল
 
মুখোমুখি হওয়া প্রথম বলে সিঙ্গেল নিয়ে রানের খাতা খুলেছিলেন শিখর ধাওয়ান। এরপর থেকে ভুগছিলেন ব্যাটে-বলে করতে। টাইমিং করতে পারছিলেন না সেভাবে। রানের জন্য ছটফট করা বাঁহাতি এই ওপেনারকে ফিরিয়ে দিলেন মুস্তাফিজুর রহমান।  
 
একটু সুইং করে ভেতরে ঢোকা বাঁহাতি পেসারের ফুল লেংথ বল পা বাড়িয়ে লেগে ঘোরাতে চেয়েছিলেন ধাওয়ান। ব্যাটে খেলতে পারেননি, বল আঘাত হানে প্যাডে। ৯ বলে ১ রান করে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে যান ধাওয়ান। 
 
৩ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ৫/১। ক্রিজে রোহিত শর্মার সঙ্গী বিরাট কোহলি।

কার্ডিফে আবার খেলা শুরু
 
বৃষ্টি থেমেছে কার্ডিফে। মিনিট বিশেক বন্ধ থাকার পর আবার শুরু হয়েছে খেলা।

খেলা শুরুর পরপরই বৃষ্টির বাধা
 
বৃষ্টির বাধায় খেলা শুরু হয়েছিল নির্ধারিত সময়ের ১০ মিনিট পর। মাত্র দুই বল হওয়ার পর বৃষ্টি ফিরে এলো কার্ডিফে। বন্ধ হয়ে গেল খেলা। 
 
মুস্তাফিজুর রহমানের করা দুই বল থেকে চার রান নিয়েছে ভারত। রোহিত শর্মা ৩ ও শিখর ধাওয়ান ১ রানে ব্যাট করছেন।

১০ মিনিট দেরিতে খেলা শুরু

বৃষ্টির বাধায় ১০ মিনিট দেরিতে খেলা শুরু হচ্ছে। নির্ধারিত সময়ের ১০ মিনিট আগে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি নেমেছিল কার্ডিফে। স্থানীয় সময় ১০টা ৪০ মিনিটে খেলা শুরু হয়েছে।

কার্ডিফে বৃষ্টি

টসের সময় আকাশ ঢাকা ছিল মেঘে। খেলা শুরু হওয়ার আগেই স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ২০ মিনিটে হালকা বৃষ্টি শুরু হয়েছে কার্ডিফে। সেন্টার উইকেট ঢেকে দেওয়া হয়েছে।

ভারত দলে নেই শুধু কেদার যাদব

কাঁধের চোটের জন্য প্রস্তুতি ম্যাচে খেলা হচ্ছে না কেদার যাদবের। স্কোয়াডের বাকি ক্রিকেটাররা  খেলবেন বাংলাদেশের বিপক্ষে।

ভারত দল: বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা (সহ-অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, বিজয় শঙ্কর, মহেন্দ্র সিং ধোনি, দিনেশ কার্তিক, যুজবেন্দ্র চেহেল, কুলদীপ যাদব, ভুবনেশ্বর কুমার, জাসপ্রিত বুমরাহ, মোহাম্মদ শামি।

বাংলাদেশ সুযোগ দিচ্ছে সবাইকে

প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ায় বাংলাদেশ দল সুযোগ দিচ্ছে স্কোয়াডের সব ক্রিকেটারকে।

বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ মিঠুন, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, সাব্বির রহমান, সৌম্য সরকার, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), মোসাদ্দেক হোসেন, আবু জায়েদ চৌধুরী। 

ছবি: বিসিসিআই

ছবি: বিসিসিআই টস জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

টস জিতে বোলিং নিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশ অধিনায়ক জানান, বৃষ্টিতে দুই দিন উইকেট ঢাকা থাকায় শুরুতে বাড়তি সুবিধা পাবেন বোলাররা। তাই ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি জানান, টস জিতলে বোলিং নিতেন তিনিও।

নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার বাংলাদেশের শেষ সুযোগ

শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে নিজেদের ঘাটতির জায়গাগুলো দেখে নিতে চায় বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের আগে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার এটাই শেষ সুযোগ মাশরাফি বিন মুর্তজার দলের।

কার্ডিফে প্রস্তুতি ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে তিনটায়।

২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ২৪০ রানে হেরেছিল বাংলাদেশ। ৩২৪ রান তাড়ায় গুটিয়ে গিয়েছিল মাত্র ৮৪ রানে।

একই ভেন্যুতে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে নিউ জিল্যান্ডের কাছে বড় ব্যবধানে হেরেছে ভারত।

জয় দিয়ে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শেষ করতে চায় বাংলাদেশ। তবে অধিনায়কের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, নিজেদের ঘাটতির জায়গাগুলো জানা। কোথায় কাজ করা উচিত, কি ঠিক করা দরকার তা জেনে খেলতে চান বিশ্বকাপে।

মতামত...