,

টেকনাফ উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আবদুল্লাহ’র মুক্তিতে প্রাণ চাঞ্চল্য ও নেতা কর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকনাফ ::
মিথ্যা, বানোয়াট ও সাজানো মামলায় আটকের দীর্ঘদিন কারাবাসের পর ২২ এপ্রিল টেকনাফ উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক  আবদুল্লাহ মুক্তি পেয়েছে। তাঁর মুক্তিতে টেকনাফ  উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের মধ্যে প্রাণ  চাঞ্চল্যতা ফিরে এসেছে। ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হচ্ছেন নেতাকর্মীদের কাছ থেকে। ঝিমিয়ে পড়া নেতাকর্মীরা তার মুক্তির খবরে তাৎক্ষণিকভাবে আনন্দ ও উল্লাসে  ফেটে পড়ে।মুক্তি পেয়ে মোহাম্মদ আবদুল্লাহ টেকনাফ পৌঁছলে টেকনাফ পৌরসভা শ্রমিক দলের সিনিয়র যুগ্নআহবায়ক ও কক্সবাজার জেলা শ্রমিক দলের সহ দপ্তর সম্পাদক আবদুর রশিদ ফুলেল শুভেচছা জানান। এ সময় তিনি বলেন, সাজানো মামলায় এতোদিন টেকনাফের জনপ্রিয় নেতাকে আটকে রেখেছিল। কিন্তু ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে নেতা ঠিকই ফিরে এসেছে। তাঁর মুক্তির খবরে  ঝিমিয়ে পড়া বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের তৃণমূল কর্মীরা উচ্ছ্বসিত। এই নেতার নেতৃত্বে সৈরচারী শাসক হাসিনার বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলে ষড়যন্ত্রের জবাব দেওয়া হবে এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন আরো বেগবান হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা বিএনপির সদস্য সোলতান আহমদ বি,এ, শাহাদত হোসাইনসহ স্থানীয় অসংখ্য নেতাকর্মী ও সমর্থক।     উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩০ নভেম্বর রাতে টেকনাফের হোয়াইক্ষ্যং কানজরপাড়ায় উখিয়া-টেকনাফের সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদির গাড়ি লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ ও ভাংচুরের অভিযোগে টেকনাফ থানায় মামলা (জিআর মামলা নং-৭৬১) দায়ের করেন গাড়ি চালক খোরশেদ আলম। এই মামলায় গত ১৮ মার্চ সোমবার জামিন নিতে আদালতে হাজির হলে বিজ্ঞ আদালত জামিন না মন্জুর করো কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ প্রদান করেন। 

মতামত...