,

খলীফায়ে ফক্বীহুল মিল্লাত, মুহাদ্দিসে দারুল উলূম দেওবন্দ আল্লামা জমিল আহমদ সাকরোটী আর নাই

ফক্বীহুল মিল্লাত আল্লামা মুফতি আবদুর রহমান (রহ.) এর অন্যতম খলীফা বিশ্ববিখ্যাত দারুল উলূম দেওবন্দ এর সুযোগ্য মুহাদ্দিস, আশরাফুল হিদায়াসহ অসংখ্য কিতাবের কালজয়ী লেখক আল্লামা মুফতি জমিল আহমদ সাকরোটী সাহেব আজ ৩১ মার্চ বিকাল পাঁচ টায় রব্বে করীমের ডাকে সাড়া দিয়েছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলায়হি রাজিউন)।
উল্লেখ্য যে, দারুল উলূম দেওবন্দ এর সিনিয়র মুহাদ্দিস আশরাফুল হিদায়ার গর্বিত লেখক ক্ষণজন্মা এই মহাপুরুষ বাংলাদেশের মুফতিয়ে আযম খলীফায়ে হারদূয়ী ফক্বীহুল মিল্লাত আল্লামা মুফতি আবদুর রহমান সাহেব (রহ.) এর হাতে বায়আত গ্রহণের প্রস্তাব করলে তিনি তাকে ইস্তিখারার মাধ্যমে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার পরামর্শ দেন। অতঃপর ইস্তিখারা পরবর্তী তার দৃঢ় সিদ্ধান্তের কথা ব্যক্ত করলে ফক্বীহুল মিল্লাত (রহ.) তাকে বায়আত করান এবং পরবর্তীতে যথারীতি খেলাফত ও রূহানী ইজাযত ভূষিত করেন। তিনি শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত আনর্জাতিকভাবে আধ্যাত্মিক খিদমতের পাশাপাশি দারুল উলূম দেওবন্দ এর সিনিয়র মুহাদ্দিস হিসেবে দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত ছিলেন। তার লিখিত কতিপয় গুরুত্বপূর্ণ কিতাব সারা বিশ্বে অধিক হারে সমাদৃত।
তার ইন্তিকালে আমরা টেকনাফ জামিয়া পরিবার গভীরভাবে শোকাহত। আমরা তার জন্য জান্নাতুল ফিরদাউসের সুউচ্চ মকাম কামনা করছি এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের জন্য সবরে জমিল প্রত্যাশা করছি।
……………………………………..
লিখক,

মুহাম্মদ কিফায়তুল্লাহ শফিক
মুহতামিম, আল-জামিয়া আল-ইসলামিয়া
টেকনাফ, প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার, কক্সবাজার, বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*