,

নির্বাচনী কাজে বাধা দিলে হাত গুঁড়িয়ে দেব: এসপি

মহেশখালী (কক্সবাজার) প্রতিনিধি ::

বক্তব্য দিচ্ছেন এসপি এবিএম মাসুদ হোসেন।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার (এসপি) এবিএম মাসুদ হোসেন বলেছেন, রোববার অনুষ্ঠিতব্য মহেশখালী উপজেলা নির্বাচনে শঙ্কামুক্ত ভোটগ্রহণের সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সেভাবেই দায়িত্বপালন করছে পুলিশ বাহিনী। শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করে ব্যালট পেপার ছিনতাই বা নির্বাচনী কাজে কেউ বাধা দিলে হাত গুঁড়িয়ে দেয়া হবে।

এখানে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তাবলয় ফলাফল ঘোষণা পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলেও জানিয়েছেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, শঙ্কামুক্ত ভোটগ্রহণে সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সেভাবেই দায়িত্বপালন করছে পুলিশ বাহিনী। শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করার চেষ্টা হলে চরম মূল্য দিতে হবে।

শনিবার দুপুরে মহেশখালী থানা মাঠে নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ কর্মকর্তাদের ব্রিফিং অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

ভোটকেন্দ্রে অপ্রীতিকর যে কোনো ঘটনার অপচেষ্টা হলেই ম্যাজিস্ট্রেট, প্রিসাইডিং অফিসারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেয়ার জন্য পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেন তিনি।

পুলিশ সুপার বলেন, প্রভাবশালীর প্রভাবে নতি স্বীকার না করে নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করতে হবে। ভোটারবান্ধব ও ভীতিমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করার আহ্বানও জানান তিনি।

মহেশখালী থানা পুলিশের ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধরের সভাপতিত্বে ব্রিফিংয়ে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- সহকারী পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম, সহকারী পুলিশ সুপার (মহেশখালী সার্কেল) রতন কুমার দাশ গুপ্ত ও মহেশখালী উপজেলা নির্বাচন অফিসার জুলকারনাইন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সন্ত্রাসপ্রবণ মহেশখালীতে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ নিয়ে নানা শঙ্কা ছিল ভোটারদের মাঝে। মহেশখালীতে ৭৪টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৫৬টি গুরুত্বপূর্ণ ও ১৮টি সাধারণ বিবেচনায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

মহেশখালী থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর জানান, এখানে ৮ জন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে দায়িত্বপালন করবে ৩৫৬ জন পুলিশ সদস্য, ৮৮৮ জন আনসার সদস্য ও ৫ প্লাটুন বিজিবি।

প্রসঙ্গত, রোববার জেলার টেকনাফ, উখিয়া, রামু, পেকুয়াও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*