,

হ্নীলায় সংবাদকর্মী ফরিদুল আলমের উপর সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা

বিশেষ প্রতিবেদক :

হ্নীলায় কর্মরত সংবাদকর্মী ফরিদুল আলমের উপর সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা চালিয়েছে রোহিঙ্গা জুয়াড়ি ও সন্ত্রাসী রোহিঙ্গা রামু গং। এই ব্যাপারে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
জানা যায়, ১৫মার্চ দুপুর আড়াই টারদিকে উপজেলার হ্নীলা পশ্চিম লেদা শিয়াইল্যাঘোনায় বসবাসকারী পুরান রোহিঙ্গা মোঃ শফির পুত্র রহমত উল্লাহ প্রকাশ রোহিঙ্গা রামু (৪৫) ও তার পুত্র নুরুল আবছার (২০) মিলে পাশ্ববর্তী জনৈক আক্তারের দোকানের সামনে দাড়ানো অবস্থায় দৈনিক আপনকণ্ঠ পত্রিকার হ্নীলা প্রতিনিধি এবং স্থানীয় মরহুম ইউছুপ আলীর পুত্র ফরিদুল আলমকে দেখে অর্তকিতভাবে গালমন্দ করে মারতে আসে। ছুরি এবং কিরিচ নিয়ে কোপানোর চেষ্টা করলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত আক্তার হোছন, আব্দুর রহমান ও জাগির এগিয়ে এসে ফরিদকে উদ্ধার করে প্রাণে রক্ষা করে।
এই ব্যাপারে বিকালে সংবাদকর্মী ফরিদুল আলম বাদী হয়ে উপরোক্ত হামলা চেষ্টাকারীদের বিরুদ্ধে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
উল্লেখ্য,এই বার্মাইয়া রামু শরণার্থী ক্যাম্পের পার্শ্ববর্তী এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্বরত প্রশাসনের কতিপয় দূর্নীতিবাজ সদস্যদের ম্যানেজ করে জুয়ার আসর, মাদক সেবন এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে আইন-শৃংখলার অবনতি ঘটিয়ে আসছে। তার এই অপকর্ম নিয়ে গত বছরের ১লা সেপ্টেম্বর পত্রিকা এবং অনলাইন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে ক্যাম্পে নিয়োজিত আইন-শৃংখলা বাহিনী ঐ রোহিঙ্গা রামুর অপকর্ম বন্ধ করে দেয়। তার অপকর্ম সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ায় সংবাদকর্মী ফরিদুল আলমকে দায়ী করে তাকে দেখে নেওয়া এবং প্রাননাশের হুমকি দেয়। এরই সুত্রধরে এই জাতীয় সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা চালানো হয়। সংবাদকর্মী ফরিদুল আলমের উপর হামলার চেষ্টার ঘটনায় হ্নীলায় কর্মরত সংবাদকর্মীরা তীব্র নিন্দা জানিয়ে চিহ্নিত এই অপরাধীকে দ্রæত আইনের আওতায় আনার জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মতামত...