,

টেকনাফে সক্রিয় হচ্ছে মানবপাচারকারি : ফের ২২ রোহিঙ্গা আটক


আমান উল্লাহ কবির, টেকনাফ::
কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে রোহিঙ্গারা স্বদেশ প্রত্যাবাসন এড়াতে এখন দলে দলে ক্যাম্প ত্যাগ করার অভিযোগ উঠেছে। অনেক রোহিঙ্গা নর-নারী ও শিশু সাগরপথে মালয়েশিয়া যাত্রা করছে। উপকুলীয় এলাকা থেকে পৃথক অভিযানে ইতিমধ্যে অর্ধশতাধিক রোহিঙ্গাকে আটক করছে পুলিশ-বিজিবি।
স্থানীয় ও রোহিঙ্গা সিন্ডিকেট মিলে একশ্রেনীর দালাল চক্র রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে লোক সংগ্রহ করে উপকূলীয় এলাকা সাবরাং, শাহপরীরদ্বীপ, বাহারছড়া, শামলাপুর পয়েন্ট দিয়ে ফিশিং ট্রলার করে সাগর অপেক্ষামান ট্রলারে মোটা অংকের মাধ্যমে উঠিয়ে দিচ্ছে।
এদিকে ১০ ফেব্রুয়ারী রবিবার রাত পৌনে ৯টারদিকে টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে রাতের অন্ধকারে বিদেশ পাড়ির চেষ্টাকালে আরো ২২ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশুকে উদ্ধার করেছে বিজিবি জওয়ানেরা। টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের সাবরাং খুরেরমুখ অস্থায়ী ক্যাম্পের হাবিলদার তাজুল ইসলাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিশেষ টহল দল নিয়ে উত্তর লম্বরী ঘাট সংলগ্ন জঙ্গলাকীর্ণ এলাকায় নৌকার জন্য অপেক্ষামান অবস্থায় কুতুপালং ক্যাম্পের ৬জন মহিলা ও ৮জন শিশু এবং বালুখালী ক্যাম্পের ১জন পুরুষ, ৪জন নারী ও ৩জন শিশুকে উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃতরা মোটাংকের বিনিময়ে দালালের মধ্যস্থতায় সাগরপথে বিদেশ পাড়ি দেওয়ার চেষ্টায় ছিল। গত ৮ ও ৯ জানুয়ারি পুলিশ ও বিজিবি পৃথক অভিযানে অর্ধশতাধিক রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ এবং শিশুকে আটক করে।
এব্যাপারে টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আছাদুদ জামান চৌধুরী জানান, মানবপাচার রোধে বিজিবি সর্বদা সচেষ্ট রয়েছে। কোনমতেই মানবপাচারকারীদের প্রশ্রয় দেওয়া হবেনা। মানবপাচারকারী দালালদের আটকের চেষ্টা চলছে। উদ্ধারকৃতদের আইনী প্রক্রিয়া শেষে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে। ##

মতামত...