,

ধারাবাহিক রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার টেকনাফের বিএনপি নেতা আবদুল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

ধারাবাহিক ভাবে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হচ্ছেন কক্সবাজার জেলা বিএনপির অর্থ সম্পাদক ও টেকনাফ উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। একটির পর একটি ঘটনায় সাজিয়ে ইতিমধ্যে তার নামে দায়ের করা হয়েছে প্রায় অর্ধশতাধিক মিথ্যা হয়রানীমুলক মামলা।
সর্বশেষ উখিয়া-টেকনাফের সাংসদ আবদুর রহমান বদির গাড়ীতে গুলি ও তাকে প্রান নাশের অভিযোগ এনে টেকনাফ মডেল থানায় আরো একটি মামলা (নং-৪, ১/১২/২০১৮ ইং) দায়ের করা হয়েছে।
এই ঘটনায় এমপি বদি টেকনাফ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল্লাহকে অভিযুক্ত করেছেন।
এবিষয়ে আব্দুল্লাহ’র সাথে কথা বললে জানান, তাকে জড়িয়ে কথা বলা নিছক ষড়যন্ত্র। ভোট কেন্দ্রে যেতে বাঁধা প্রদানের একটা সন্ধি খোঁজতেছেন। তিনিও এই ঘটনার নিন্দা জানান এবং ঘটনার সত্যতা উদঘাটনের দাবি করেন। তিনি আরো বলেন, এমপি বদির সাথে তার কোন ঝড়গা নেই, কোন নেলদেন নেই। কারা হামলা করেছে তাদের খোঁজে বের করা প্রয়োজন।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, টেকনাফের গোদার বিলের সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহমদের পুত্র মোঃ আব্দুল্লাহ (এলএলবি) দীর্ঘ দিন থেকে বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত। স্থাবর অস্থাবর অঢেল সম্পদের মালিক তিনি।
রাজনীতিতেও তিনি সক্রিয়। তার জনপ্রিয়তায় ইর্ষান্বিত হয়ে একটি প্রতিপক্ষ দীর্ঘদিন থেকে পিছু লাগোয়া আছে। একারণ সমুহের ধারাবাহিক সিরিজ মামলার পাশাপাশি তাকে ব্যাপক জন সমর্থন থাকায় মোঃ আবদুল্লাহ কে মানষিক ভাবে বিপর্যস্থ করতে তার শিশু পুত্রকে বিগত ২০১১ সনে ভাড়াটে খুনি দিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় তাতেও ক্ষান্ত না হয়ে একটির পর একটি ধারাবাহিক সিরিজ মামলার পাশাপাশি তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুর চালায়। এসব স্বত্ত্বেও আবদুল্লাহর জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় তার বৃদ্ধ পিতা সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহমদকে থানায় ধরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন চালিয়েছিল। কিন্তু জনগন সেদিন তাকে ছেড়ে না দেওয়া পর্যন্ত থানা ঘেরাও করে রাখে। অবশেষে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। ওইসব অদৃশ শক্তিরা যতই হামলা মামলা করেছে ততই আবদুল্লাহর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে।
কিন্তু বিএনপি নেতা আব্দুল্লাহর পরিবারে যে অপূরনীয় ক্ষতি সাধিত হয়েছে তা কোন ভাবেই পোষানোর মত নয়।
সর্বশেষ এমপি আবদুুর রহমান বদির গাড়িতে গুলি চালানোর ঘটনায় তাকে জড়িয়ে আরো একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে।
এই মিথ্যা ও সাজানো মামলায় তাকে জড়ানোর কারনে টেকনাফের সর্বত্রই ছিঃ ছিঃ রব উঠেছে। টেকনাফবাসীরা উল্টো প্রশ্ন রাখেন, আবদুল্লাহর মতো একজন জনপ্রিয় নেতা কেন এমপি বদির গাড়িতে গুলি চালাবে? তাছাড়া তিনি তার প্রতিপক্ষ এমপি প্রার্থীও নন। তারাও এই হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছে।

মতামত...