,

পুলিশের সাথে বন্ধুক যুদ্ধে শামলাপুরের হাবা চৌধুরী নিহত

 

উপকূলীয় প্রতিনিধি: :

টেকনাফে আবারো পুলিশের সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে ৷ এঘটনায় এক যুবক নিহত হয়েছে বলে জানা যায় । ঘটনাস্থল হতে অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত যুবক তালিকা ভূক্ত মাদককারবারী বলে পুলিশ সুত্রে জানা যায় ৷
জানা যায়, ১ ডিসেম্বর শনিবার ভোররাতে টেকনাফ থানা পুলিশের বাহারছড়ার ইউনিয়নের শামলাপুরের মোহাম্মদ হোছনের পুত্র হাবিব উল্লাহ ওরফে বাবা চৌধুরী (৩০) কে আটক অভিযানে গেলে তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এসময় পুলিশের এসআই রাজু, কনস্টেবল বাদশা এবং জিয়া আহত হলে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টাগুলিবর্ষণ করে। কিছুক্ষণ পর মাদক কারবারীরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে ২টি দেশীয় অস্ত্র, ৬হাজার ইয়াবা ও রক্তাক্ত গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়েছে। হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। পরে লাশ পোস্ট মর্টেমের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
এই ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশ জানান, পুলিশ-মাদক কারবারী বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয় এবং এক রক্তাক্ত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পরিচয় সনাক্ত করে লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়। এসময় ২টি অস্ত্র ও ৬ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।
এদিকে এলাকাবাসী সুত্র জানায়, এই মাদক কারবারীর উৎপাতে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ ছিল। সে ক্রসফায়ারে নিহতের খবরে এলাকায় স্বস্থি ফিরেছে।

মতামত...