,

ইসরাইল-ফিলিস্তিন উত্তেজনা, হামাস টিভি ধ্বংস

ডেস্ক নিউজ ::

বিমান হামলা চালিয়ে আরো কমপক্ষে চার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরাইলি সেনারা। তারা ধ্বংস করে দিয়েছে যোদ্ধা গোষ্ঠী হামাসের ‘হামাস টিভি’। সেখানে কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা জানা যায় নি। ২০১৪ সালের পর ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে সবচেয়ে জঘন্য সহিংস অবস্থা বিরাজ করছে। রকেট হামলার অভিযোগে এর আগে ইসরাইলি সেনারা ছদ্মবেশ ধারণ করে গাজা উপত্যকার ভিতরে প্রবেশ করে সেখানে হত্যাযজ্ঞ চালায়। তাতে নিহত হন হামাসের একজন সিনিয়র কমান্ডার সহ কমপক্ষে সাত ফিলিস্তিনি। এর ২৪ ঘন্টারও কম সময় পরে নতুন করে গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা চালায় ইসরাইল। এ সময় গাজায় ঘনবসতিপূর্ণ এলাকাগুলোতেও গোলা নিক্ষেপ করে ইসরাইলিরা।

সোমবার দিনের শুরুতে ইসরাইলের দিকে বেশ কিছু রকেট নিক্ষেপ করা হয় গাজা উপত্যকা থেকে। ইসরাইল বলেছে, তাদের আয়রন ডোম সিস্টেম দিয়ে ৩০০ রকেটকে অকেজো করে দেয়া হয়েছে। তবে একটি রকেট একটি বাসে আঘাত করেছে। আরেকটি দক্ষিণ ইসরাইলে একটি ভবনে আঘাত করেছে। ওই ভবনের ধ্বংসাবশেষ থেকে একজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। অ্যাশকেলনের ওই ভবন থেকে একজন নারীকে উদ্ধার করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। ইসরাইলি সেনারা বলেছে, একজন সেনা সদস্য মারাত্মক আহত হয়েছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ২৭ ইসরাইলি।
এমন অবস্থায় সব পক্ষকে এমন লড়াকু অবস্থান থেকে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরাঁ। মহাসচিবের মুখপাত্র ফারহান হক বলেছেন, পরিস্থিতিকে শান্ত করতে মিশর ও সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছেন জাতিসংঘের বিশেষ সমন্বয়ক নিকোলাই ম্লাদেনভ।
ওদিকে ইলেক্ট্রনিক ইনতিফাদা’র আলি আবুনিমাহ বলেছেন, গাজায় সাধারণ মানুষকে টার্গেট করছে ইসরাইল। তারা সন্ত্রাসী কাজ চালাচ্ছে। বোমা হামলা করছে। মানুষদের হত্যা করছে।

মতামত...