,

সংলাপ: শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২২ নেতা, ঐক্যফ্রন্টের ১৬

ডেস্ক নিউজ ::
নতুন রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপে বসতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। এ সংলাপে ক্ষমতাসীন দলের নেতৃত্ব দেবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার গণভবনে সন্ধ্যা ৭টায় সংলাপ হবে।
এরআগে আজ বুধবার বিকেলে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১৪ দলের ২২ জন প্রতিনিধি সংলাপে অংশ নেবেন। প্রথমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ২১ জনের অংশ নেওয়ার কথা জানানো হয়েছিল। পরে ২২ জনের কথা জানানো হয়।
গণমাধ্যমে পাঠানো তালিকা অনুযায়ী অন্যদের মধ্যে থাকবেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ, আমির হোসেন আমু, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, মোহাম্মদ নাসিম, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কাজী জাফরউল্লাহ, আব্দুর রাজ্জাক, রমেশ চন্দ্র সেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, দীপু মনি, আবদুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, আইনবিষয়ক সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম প্রমুখ।
এছাড়া আরো থাকবেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু এবং জাসদের একাংশের সভাপতি মইন উদ্দীন খান বাদল।
সংলাপের জন্য মঙ্গলবার ১৬ সদস্যদের একটি তালিকা দেয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এই ১৬ জন সংলাপের জন্য গণভবনে যাবেন। এতে নেতৃত্ব দেবেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন।
অন্যদের মধ্যে থাকবেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমির উদ্দিন সরকার ও মির্জা আব্বাস। আর নাগরিক ঐক্য থেকে থাকবেন মাহমুদুর রহমান মান্না ও এসএম আকরাম। গণফোরাম থেকে মোস্তফা মহসিন মন্টু ও সুব্রত চৌধুরী। ঐক্য প্রক্রিয়া থেকে যাবেন সুলতান মোহাম্মদ মনসুর, আ ব ম মোস্তফা আমিন ও জাফরুল্লাহ চৌধুরী। জেএসডি থেকে থাকবেন আ স ম আব্দুর রব, আব্দুল মালেক রতন, তানিয়া রব।
প্রসঙ্গত, গত রবিবার সরকারের সঙ্গে সংলাপ চেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে চিঠি দেয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। পরদিন সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর দলীয় শীর্ষ নেতাদের অনির্ধারিত এক বৈঠকে সংলাপের আহ্বানে সাড়া দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আওয়ামী লীগ। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার চিঠি ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেনের বাসায় পৌঁছে দেন আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবাহান গোলাপ।
প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণপত্রে লেখা রয়েছে, ‘সালাম ও শুভেচ্ছা নিবেন। আপনার ২৮ অক্টোবর ২০১৮ তারিখের পত্রের জন্য ধন্যবাদ। অনেক সংগ্রাম ও ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে সংবিধানসম্মত সকল বিষয়ে আলোচনার জন্য আমার দ্বার সর্বদা উন্মুক্ত। তাই আলোচনার জন্য আপনি যে সময়  চেয়েছেন, সে পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ১ নভেম্বর ২০১৮ তারিখ সন্ধ্যা সাতটায় আপনাদের আমি গণভবনে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।’

মতামত...