,

বদলে গেলো ক্রিকেটের গুরুত্বপূর্ণ দুটি নিয়ম

চলতি বছর কেপটাউন টেস্টে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটারদের বল বিকৃতির ঘটনা থেকে ভালোই শিক্ষা নিল আইসিসি। যে কারণে অনেক গবেষণা করে আইসিসি এবার বল বিকৃতির অপরাধে শাস্তি কঠোর করে নিলো ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটি।

খেলার মাঠে যদি কোনো ক্রিকেটার বলের আকার পরিবর্তনের চেষ্টা করেন, তাহলে সেটা আইসিসি’র লেভেল থ্রি অপরাধ বলে বিবেচিত হবে। আগে যা লেভেল টু অপরাধ বলে গণ্য করা হতো। নতুন নিয়ম চালু করা হলো, ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে। এদিন নতুন নিয়মের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হলো দক্ষিণ আফ্রিকা এবং জিম্বাবুয়ে।

নতুন নিময়ে এবার বল বিকৃতি করলে (লেভেল থ্রি অপরাধের জন্য) ১২ ডিমেরেট পয়েন্ট যোগ করা হবে। আগে যে অপরাধের জন্য শাস্তি ছিল আট ডিমেরিট পয়েন্ট। অর্থ্যাৎ ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে বল বিকৃতির অপরাধের শাস্তি হিসেবে অভিযুক্ত ক্রিকেটারকে ৬ টেস্ট বা ১২টি ওয়ানডে ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে।

এছাড়া মাঠে অসভ্য আচরণ কিংবা আম্পায়ারের সঙ্গে ঝামেলায় জড়ালেও শাস্তি কঠিন করলো আইসিসি। একই সঙ্গে বৃষ্টি আইন ডার্কওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতেও পরিবর্তন আনা হলো।

শনিবারই আইসিসি জানিয়েছিল, নতুন বৃষ্টি আইনের কথা। রোববার থেকেই দক্ষিণ আফ্রিকা-জিম্বাবুয়ে ম্যাচ থেকে চালু হলো নতুন এই নিয়ম। একই সঙ্গে চালু হল আইসিসি’র নতুন কোড অব কন্ডাক্ট এবং প্লেয়িং কন্ডিশন।

ডার্কওয়ার্থ-লুইস মেথডের এটি হল তৃতীয় ভার্সন। এর আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ডিএল মেথডের দ্বিতীয় ভারসন করা হয়েছিল ২০১৪ সালে। ডিএল মেথডে বল-বাই-বল বিশ্লেষণ করা হয়। এমনকি পাওয়ার প্লে-তেও। এই চার বছরে খেলা হয়েছে ৭০০টি ওয়ানডে এবং ৪২৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

নতুন নিয়মে ইনিংসের শেষ দিকে যে দল বেশি রান করতে তারা একটু বেশি সুবিধা পাবে। যেমন ওয়ানডে’র ক্ষেত্রে ইনিংসের শেষ ২০ ওভারের রান রেট বেশি গুরুত্ব পাবে। পুরুষ ও নারী- উভয় ক্রিকেটেই এই নিয়ম প্রজোয্য হবে। তবে ২০১৯ বিশ্বকাপের (ওয়ানডে) কথা ভেবে বিশেষ কোনও পরিবর্তনের রাস্তায় হাঁটেনি আইসিসি।

এছাড়াও নতুন নিয়মে খেলোয়াড়দের কোড অব কান্ডাক্টেও বেশ কয়েকটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। গত জুলাই মাসের ২ তারিখ ডাবলিনে আইসিসির বোর্ড মিটিংয়ে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। নতুন নিয়মে লেভেল ৩ অপরাধের জন্য ৮ থেকে সাসপেনসন্স পয়েন্ট বেড়ে হয় ১২। অর্থাৎ ৬টি টেস্ট এবং ১২টি ওয়ানডে ম্যাচের সমতুল্য। এখন থেকে লেভেল ১, ২, ৩ অপরাধের শাস্তি দিতে পারবেন ম্যাচ রেফারি। লেভেল ৪ অপরাধের শুনানি হবে জুডিসিয়াল কমিশনে।

উল্লেখ্য চলতি বছরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের কেপটাউন টেস্টে বল বিকৃতি করায় দোষী সাব্যস্ত হন অস্ট্রেলিযার তিন ক্রিকেটার। অসি দলনেতা স্মিভেন স্মিথ ও সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে দেশের হয়ে ক্রিকেট খেলা থেকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড (ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া)। মূল অভিযুক্ত ক্যামেরন ব্যানক্রফ্টকে ক্রিকেট থেকে ৯ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*