,

টেকনাফ উপজেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি জহির হোসেন এমএ এর প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ::

গত ১০ সেপ্টেম্বর দৈনিক কালের কন্ঠ ও দেশবিদেশসহ কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত “শেখ হাসিনার চেয়ে এমপি বদি জনপ্রিয়” শীর্ষক সংবাদে আমার দেয়া বক্তব্যকে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে ভিন্নভাবে প্রভাবিত করার চেষ্টা করেছে। যা স¤পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যেমূলক।
মূলত গত ৮ সেপ্টেম্বর শনিবার টেকনাফ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা পরিষদের আয়োজিত জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের ঈদ পূর্ণমিলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আমি টেকনাফ উপজেলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি জহির হোসেন এমএ বক্তব্য রাখি।
বক্তব্যের এক পর্যায়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি উখিয়া-টেকনাফ এই লক্ষী আসনে নৌকার প্রতীকে দুই বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদিকে আবারো মনোনয়ন দিলে এই আসনে অন্য কোন নেতা আবদুর রহমান বদিকে হারাতে পারবে না। আর এই বক্তব্যকে বিকৃত করে অনেকটাই প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদটি ছাপিয়েছে। আমি বলেছি, গত ১০ বছরে জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতিনিধি হিসেবে উখিয়া-টেকনাফে এমপি বদি যে উন্নয়ন করেছেন, তা অব্যাহত রাখতে আবারো বঙ্গবন্ধু তনয়া দেশরতœ শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে। যার স্বাক্ষী অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত সবাই। কিন্তু কতিপয় সাংবাদিক ও টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগে ঘাঁপটি মেরে থাকা খন্দকার মুশতাকদের দোসর যারা বিভিন্ন সময় আওয়ামীলীগের সাথে বেঈমানী করার ইতিহাস রয়েছে। তারাই দীর্ঘদিন ধরে এই আসনে নৌকার সুনিশ্চিত বিজয়কে রুখতে বিভিন্ন বির্তকের সৃষ্টি করেন। এই বির্তক সৃষ্টির মাধ্যমে নিজেদের স্বার্থ হাসিলের পায়তারা করে আসছে। আমি ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগ করে তৃনমূল থেকে উঠে এসে আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে আসছি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষন স্বচক্ষে দেখার সুযোগ হয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনের কারনে আমি বিএ পরীক্ষায় অংশ নিতে পারিনি। অথচ আজকে আমার দেয়া বক্তব্যকে বিকৃত করেছে যা কোন ভাবেই কাম্য নয়। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আ.লীগের রাজনীতির সাথে স¤পৃক্ত রয়েছি। এছাড়া আগামী টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন ও কাউন্সিলে আমি সভাপতি প্রার্থী। তাই দলীয় ভাবে একটি পক্ষ মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। এটি তাদের একটি ষড়ষন্ত্রের অংশ। গেল দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরাজিত তাহা ইয়াহিয়া ও তার বাবা ইয়াহিয়া মিলে এমপি বদির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আসছে। সেই ইয়াহিয়া তাদের নিজস্ব পত্রিকায় এবং নিজস্ব লোক দিয়ে মিথ্যা সংবাদ ছাপিয়েছে। যেহেতু আগামী নির্বাচনে মো. ইয়াহিয়া জাতীয় পাটির প্রার্থী দৌড় চালাচ্ছেন।
পরিশেষে বলতে চাই, এ রকম সংবাদে গোয়েন্দা সংস্থা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ ও সুশীল সমাজের কাউকে বিভ্রান্ত না হতে বিনীতভাবে অনুরোধ করছি।

১১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি জহির হোসেন এমএ উপরোক্ত বক্তব্য তুলে ধরেন। আওয়ামীলীগ নেতা এরফানুর রহিম উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিবাদকারী-
জহির হোসেনএমএ
সহ-সভাপতি
টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগ।
০১৮৮২৬৭২১৪১

মতামত...