,

লামায় প্রান্তিক কৃষকের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা ::

লামায় এক প্রান্তিক কৃষকের ফসলের মাঠে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করার অভিযোগ উঠেছে। এই বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক মো. নুরুল আলম (৩৫) স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে প্রভাবশালী ও ভূমিদস্যু হামলাকারীদের বিরুদ্ধে বিচার দিয়ে না পাওয়ায় আদালতে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। কৃষক মো. নুরুল আলম লামার সরই ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আমতলী পাড়ার হারেচ মিয়ার ছেলে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মো. নুরুল আলম এর পিতা- হারেচ মিয়া সরই ইউনিয়নের ৩০১নং সরই মৌজার ১০৬ নং হোল্ডিং মূলে ১৯৭৭-৭৮ইং সনে সরকার কর্তৃক বন্ধোবস্তী পেয়ে অন্য ওয়ারিশ সহ ৪ একর জায়গার মালিক এবং ভোগদখলে রয়েছেন। পরিবার পরিজন নিয়ে তারা প্রায় ৫০ বছরের অধিক সময় উক্ত জায়গায় বসতবাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করছে। পার্শ্ববর্তী জনৈক মৃত সামশুল হকের স্ত্রী পারভীন আক্তার (৪০) নতুন অন্য একটি কাগজ প্রদর্শন করে উক্ত জায়গা নিজের দাবী করছে। এই বিষয়ে বান্দরবান অতিরিক্ত জেলা জজ আদালতে মিস মামলা ০২/২০১৫ চলমান রয়েছে। আদালত বিরোধীয় জায়গা উপর পারভীন আক্তারের স্বামী সামশুল হকের দায়েরকৃত স্তিতিবস্থা আবেদন বাতিল করায় দখলদার হাচের মিয়া পূর্বের মত ভোগদখলের সুযোগ পায়।
অভিযোগে বাদী মো. নুরুল আলম নিজ জমিতে ধানের চারা রোপন করলে গত শুক্রবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে পারভীর আক্তার পার্শ্ববর্তী লোহাগাড়ার উত্তর কলাউজান ও সাতকানিয়া হতে বহিরাগত ২০/২২ জন লোক নিয়ে দেশীয় অস্ত্র, লাঠি সোটা সহ হামলা চালায়। পারভীর আক্তার পার্শ্ববর্তী লোহাগাড়া উপজেলার উত্তর কলাউজানের তেলী পাড়ার বাসিন্দা। এসময় তারা ২ কানি (৮০ শতক) জমির ধান চারা নষ্ট, ৩০ কেজি ধানের বীজতলা নষ্ট, ১টি হালচাষের পাওয়ার টিলার মেশিন হাতুড়ি দিয়ে ভেঙ্গে ফেলে এবং ধান ক্ষেতের পাশের রাবার বাগানের বেশ কিছু চারা গাছ কেটে প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে। প্রতিপক্ষ হামলাকালে কৃষক নুরুল আলম পরিবারের লোকজন নিয়ে অন্যত্র পালিয়ে জীবন বাঁচায়। পারভীনের নেতৃত্বে হামলাকারী কামাল উদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলম, আব্বাস আলী, মো. রফিক, খুরশিদা বেগম, মৌলানা ছবুর, মিনু আক্তার সহ অন্যান্যরা অসহায় কৃষক পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি সহ ভয়ভীতি দেখিয়ে যায়।
স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আশ্রাফ আলী বলেন, নুরুল আলমের পিতা- হাচের মিয়া দীর্ঘদিন যাবৎ উক্ত জায়গা ভোগদখলে রয়েছে। নতুন কাগজ সৃষ্টি করে পারভীর আক্তার উক্ত জমি নিজের দাবী করছে।
এই বিষয়ে প্রতিপক্ষ পারভীর আক্তার মুঠোফোনে প্রতিবেদককে বলেন, নুরুল আলম ও তার পিতা- হারেচ মিয়া বিরোধীয় জায়গায় চাষাবাদ করায় আমরা সেখানে বাধা দিয়েছি।
সরই ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদ উল আলম বলেন, পারভীন আক্তারের পিছনে অনেক প্রভাবশালী লোকজন রয়েছে। সে স্থানীয় বিচারকদের বিচার মানেনা। উক্ত বিষয়ে উভয় পক্ষের বান্দরবান জজ কোর্ট ও লামা জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা চলমান রয়েছে।

মতামত...