,

টেকনাফে যৌথ ট্রান্সফোর্স অভিযান : মোটর সাইকেল ও টাকা উদ্ধার – ৫জনের সাজা

বিশেষ প্রতিবেদক::


টেকনাফে মাদক গডফাদারদের গ্রেফতার করতে মাদক কারবারীদের রাজ প্রাসাদ সহ সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে যৌথ ট্রাস্কফোস অভিযান পরিচালিত হয়েছে। অভিযানকালে ২টি মোটর সাইকেল ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়।এবং নারী সহ ৫জনকে আটক করা হয় বলে জানা যায়।
মাদক বিরোধী এ অভিযানে নারীসহ আটক ৫ জনকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করেছে যৌথ টাস্কফোর্স। তবে শীর্ষস্থানীয় কোন গডফাদারকে আটক করা সম্ভব হয়নি।
তথ্য সুত্রে জানা যায় ১২ জুলাই (বৃহস্পতিবার ) সকাল থেকে টেকনাফ পৌর সভার পুরাতন পল্লান পাড়া, টেকনাফ সদরের শীলবুনিয়া পাড়া, মৌলভী পাড়া, নাজির পাড়া, কচুবনিয়া ও সাবরাং সিকদার পাড়ায় এ অভিযান চালানো হয়।
টেকনাফ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ( ভারপ্রাপ্ত) ও নিবার্হী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রনয় চাকমার নেতৃত্বে এ অভিযানে র‌্যাব, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর, পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা অংশ নেন। যৌথ ট্রাস্কফোর্স কয়েকজন মাদক গডফাদারের বাড়িতে অভিযান চালালে ও এসময় কাউকে পাওয়া যায় নি বলে জানিয়েছেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তা ।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায় মাদক বহন, বিক্রি ও ব্যবহারের কারনে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে টেকনাফ পৌর সভার পুরান পল্লান পাড়ার মৃত সোলতান আহমদের ছেলে মো. ইলিয়াছ কালু, সাবরাং ইউনিয়নের সিকদার পাড়ার সাহাব মিয়ার স্ত্রী খাতু বিবি ও মৃত ছৈয়দ আহমদের ছেলে মোজাহের মিয়াকে ২ বছর করে , টেকনাফ কচুবনিয়ার মো. করিমের ছেলে নুর মোহাম্মদকে ৬ মাস এবং আব্দুল জলিলের ছেলে নুরুল আলমকে ১ মাসের কারাদন্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমান আদালত। পরে সাজা প্রাপ্তদের টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়। অভিযান চলাকালে একটি পরিত্যাক্ত বাড়ী থেকে ২ টি মোটর সাইকেল ও সাড়ে ৩৬ হাজার নগদ টাকাও উদ্ধার করা হয়। যৌথ এ টাস্কফোর্সের খবর ছড়িয়ে পড়ায় অনেক বড় বড় মাদক গড ফাদাররা শূণ্যবাড়ী ফেলে চলে যায় বলেও জানা যায়। অভিযানে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কক্সবাজার সার্কেলের উপ-পরিচালক সৌমেন বিশ্বাসও উপস্থিত ছিলেন।##

মতামত...