,

ঢাকায় বিজিবি-বিজিপি চার দিনব্যাপী সীমান্ত সম্মেলন শুরু

ডেস্ক নিউজ::

ইয়াবা পাচার রোধ ও সীমান্তে অবৈধ অনুপ্রবেশের উপর গুরুত্ব দিয়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) সিনিয়র পর্যায়ে চার দিনব্যাপী সীমান্ত সম্মেলন শুরু হয়েছে।

সোমবার (৯ জুলাই) সকালে রাজধানীর পিলখানায় বিজিবি সদর দফতরে এ সম্মেলন শুরু হয়। আগামী ১২ জুলাই যৌথ আলোচনার দলিল স্বাক্ষরের মাধ্যমে এ সম্মেলন শেষ হবে।

মিয়ানমারের চিফ অব পুলিশ জেনারেল স্টাফ, পুলিশ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মায়ো থানের নেতৃত্বে মিয়ানমারের ১১ সদস্যের প্রতিনিধিদল সীমান্ত সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন।

অপরদিকে, বাংলাদেশের পক্ষে বিজিবির অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আনিছুর রহমানের নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের প্রতিনিধিদল অংশ নিচ্ছে সম্মেলনে। বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে বিজিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ কোস্টগার্ড ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা রয়েছেন।

এবারের সম্মেলনে মাদকদ্রব্য, বিশেষ করে ইয়াবা পাচার প্রতিরোধ, সীমান্তবর্তী এলাকায় মিয়ানমারের বিজিপি ও সেনাবাহিনীর ফায়ারিং, মিয়ানমার নাগরিকদের অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ, সীমান্তবর্তী এলাকায় মিয়ানমারের সামরিক হেলিকপ্টার ও ড্রোন চলাচল, শূন্য লাইন থেকে মাইন/আইইডি (ইম্প্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) অপসারণসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

বৈঠক শেষে আগামী ১২ জুলাই যৌথ আলোচনার দলিল স্বাক্ষরিত হবে এবং একই দিন মিয়ানমার প্রতিনিধিদলের ঢাকা ত্যাগের কথা রয়েছে।

মতামত...