,

কক্সবাজার পৌর নির্বাচন : প্রতীক পেয়েছে ৮৬ প্রার্থী, আনুষ্ঠানিক প্রচারণায় মাঠে

শাহেদ মিজান::

কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনে মনোয়নয়ন বৈধ হওয়া ৮৬ প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছে জেলা নির্বাচন অফিস। ৪ জুলাই সকাল থেকে দিনব্যাপী পৃথক পৃথক ভাবে প্রার্থীদের কাছে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছে নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হোসেন। এতে পাঁচ মেয়র, ১৭ সংরক্ষিত ও ৬৪ জন সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রতীক পেয়ে মোট ৮৬জন প্রার্থী মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হয়েছেন। প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই আনুষ্ঠানিক প্রচারনায় নেমেছেন প্রার্থীরা।

জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের দেয়া তথ্য মতে, মেয়র পদে পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে বর্তমান মেয়র (বরখাস্ত) নাগরিক কমিটির প্রার্থী সরওয়ার কামাল পেয়েছেন নারিকেল গাছ, আওয়ামী লীগের মুজিবুর রহমান পেয়েছেন নৌকা, বিএনপির রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ধানের শীষ, জাপার রুহুল আমিন সিকদার  পেয়েছেন লাঙ্গল ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র জাহেদুর রহমান পেয়েছেন হাতপাখা।

সংরক্ষিত মহিলা 

১ (১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড) : শাহেনা আকতার পাখি-আনারস, আয়েশা সিরাজ-টেলিফোন, হুমায়রা বেগম-অটো রিকশা, টিপু সোলতানা-চশমা ও ফাতেমা বেগম-জবাফুল পেয়েছেন।

(৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড) : ইয়াছমিন আকতার-চশমা, রেবেকা সুলতানা-আনারস, চম্পা উদ্দীন- টেলিফোন প্রতীক পেয়েছেন।

(৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড) : জাহেদা আক্তার-চশমা, জোৎস্না আক্তার-টেলিফোন, সুমা দাশ-আনারস, আয়েশা ইসলাম- বলপেন ও দ্বীপ্তি শর্মা- জবাফুল প্রতীক পেয়েছেন।

 (১০, ১১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ড): কোহিনুর ইসলাম-আনারস, হোসেন আরা-চশমা, পারভীন আক্তার-জবাফুল ও নাছিমা আকতার বকুল-টেলিফোন প্রতীক পেয়েছেন।

অপরদিকে, সাধারণ সদস্য (কাউন্সিলর) পদে-

১নং ওয়ার্ড: রাহামত উল্লাহ-উটপাখি, মোস্তাক আহমদ-টেবিল ল্যাম্প, এস.আই.এম.আক্তার কামাল আজাদ-পাঞ্জাবী, সিকান্দর আবু জাফর-ব্ল্যাকবোর্ড) ও মো. আতিক উল্লাহ-ডালিম।

২নং ওয়ার্ড: মনির উদ্দীন-ব্ল্যাকবোর্ড, মো. জসিম উদ্দিন-টবিল ল্যাম্প, হোসাইন ইসলাম বাহাদুর-পাঞ্জাবী), মিজানুর রহমান-পানির বোতল, এম.জাফর আলম হেলালী-উটপাখি ও আবু তাহের-ডালিম পেয়েছেন।

৩নং ওয়ার্ড : মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম-উটপাখি ও মো.মাহাবুবুর রহমান চৌধুর-পাঞ্জাবী পেয়েছেন।

৪নং ওয়ার্ড : নুরুল আবছার-টিউব লাইট, আবদু গফ্ফার-টেবিলল্যাম্প, এরশাদুজ্জামান-ফাইল কেবিনেট, মো. দিদারুল ইসলাম-উটপাখি, জুনায়েদ আহমদ-ব্ল্যাকবোর্ড, মিজানুল করিম-ডালিম, আবু খালিদ-পাঞ্জাবী) ও সিরাজুল হক পানির বোতল পেয়েছেন।

৫নং ওয়ার্ড : সাইফুল ইসলাম চৌধুরী-পাঞ্জাবী), সাহাব উদ্দিন-উটপাখি), গোলাম আরিফ লিটন -টেবিলল্যাম্প ও ছালামত উল্লাহ বাবুল-ডালিম।

৬নং ওয়ার্ড : মো. ফেরদৌস চৌধুরী-ব্ল্যাকবোর্ড, ওমর ছিদ্দিক-টেবিলল্যাম্প , ফাহাদ আলী-গাজর, নাছির উদ্দিন- উটপাখি, মোশারফ আজাদ মনছুর-পাঞ্জাবী, মো. শহীদুল্লাহ-ডালিম, শফিউল আলম-ফাইল কেবিনেট, শাহ আলম-ঢেড়শ), মনিরুল হক-টিউবলাইট) ও সুবদত্ত বড়ুয়া-পানির বোতল পেয়েছেন।

৭নং ওয়ার্ড : জাফর আলম-পাঞ্জাবী), মুুহাম্মদ রশিদ-উটপাখি, আশরাফুল হুদা সিদ্দিকী জামসেদ-টেবিল ল্যাম্প ও ফোরকান আহমেদ খোকন-ডালিম পেয়েছেন।

৮নং ওয়ার্ড : বেলাল হোসেন-পাঞ্জাবী, ডালিম কুমার বড়ুয়া-ব্ল্যাক বোর্ড, রাজ বিহারী দাশ-উটপাখি, রাজিব পাল-ডালিম ও মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম-টেবিল ল্যাম্প পেয়েছেন।

৯নং ওয়ার্ড : মো. হেলাল উদ্দীন-উটপাখি, মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ-টেবিল ল্যাম্প, আবু ওবায়েদ্দীন নাছের-ডালিম ও মো.শওকত আলম-পাঞ্জাবী পেয়েছেন।

১০ নং ওয়ার্ড : সালা উদ্দিন-উটপাখি, কফিল উদ্দিন-টেবিলল্যাম্প ও জাবেদ মো. কায়সার নোবেল-পাঞ্জাবী।

১১ নং ওয়ার্ড : আমীর হোসেন- উটপাখি, আবু শাহাদৎ মো. সায়েম-গাজর, মো. সেলিম রেজা-ব্ল্যাকবোর্ড, মো.শফিউল আলম-টেবিলল্যাম্প, নুর মোহাম্মদ-ডালিম), মোহাম্মদ জরিপ আলী-পানির বোতল, মো. হেলাল উদ্দীন-ব্রিজ ও আহম্মদ হোসেন-পাঞ্জাবী পেয়েছেন।

১২ নং ওয়ার্ড : আবুল মনছুর-ডালিম, নুরুল ইসলাম-ব্ল্যাকবোর্ড, কাজী মোরশেদ আহম্মদ বাবু-টেবিল ল্যাম্প, মো.জসিম উদ্দীন-উটপাখি) ও কাজী রাশেল আহমেদ-পাঞ্জাবী) প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন ।

রিটার্নিং অফিসার ও কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হোসেন বলেন, জেলা নির্বাচন অফিসের সম্মেলন কক্ষে বুধবার সকাল ১০ টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ৫ মেয়র, সাড়ে ১০ টা থেকে সাড়ে ১১ টা পর্যন্ত ১৭ সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও সাড়ে ১১ টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ১ থেকে ১২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

তিনি আরো জানান, তফসিল অনুসারে ৩ জুলাই মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে পৌরসভার ১২ ওয়ার্ডের মাঝে ৭টি ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়ে বৈধতা পাওয়ার পর ১৫ জন তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন।
প্রতীক বরাদ্দের সময় সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শিমুল শর্মা, প্রধান সহকারি মোজাফ্ফর আহমদ, প্রার্থীদের প্রস্তাবক ও সমর্থকসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

মতামত...