,

ইরান-ইসরাইল যুদ্ধ বেধে যাবে!

ডেস্ক নিউজ ::

ইরান ও ইসরাইলের মধ্যে নতুন করে যুদ্ধের দামামা বেজে উঠেছে। পাল্টাপাল্টি হামলাও হয়েছে দু’পক্ষে। ফলে মধ্যপ্রাচ্যে আরো একটি বড় ধরনের যুদ্ধ শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। ইসরাইলের দখল করে নেয়া গোলান উপত্যকায় ইসরাইলি সেনাদের লক্ষ্য করে ইরান ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। এর জবাবে বুধবার দিবাগত রাতে সিরিয়ায় ইরানের সামরিক স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা। এতে বলা হয়, ইসরাইলের অভিযোগ তেহরান থেকে গোলান উপত্যকায় ইসরাইলি সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। এর জবাব দিয়েছে ইসরাইলি সেনারা। বৃহস্পতিবার তারা বলেছে, বুধবার দিবাগত রাতভর ইরানের ওইসব সামরিক স্থাপনাকে লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে।  ইসরাইলি সেনা মুখপাত্র জোনাথন কনরিকাস সাংবাদিকদের বলেছেন, সিরিয়ায় ইরানের সামরিক স্থাপনা লক্ষ্য করে বহু হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি সেনাবাহিনী। এসব হামলা হয়েছে গোয়েন্দা, লজিস্টিক, সংরক্ষণাগার, সামরিক যান ও রকেট তৈরির উৎসস্থল লক্ষ্য করে। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সানা সামরিক একটি সূত্রকে উদ্ধৃত করে বলেছে, ইসরাইলের ওই হামলায় ধ্বংস হয়ে গেছে সিরিয়ার একটি রাডার স্থাপনা। এতে বলা হয়, আকাশ পথে প্রতিরক্ষা বিভাগ ইসরাইল থেকে ছুটে আসা কয়েক শত রকেটের মোকাবিলা করেছে। তবে কিছু রকেট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে সক্ষম হয়। এতে একটি রাডার স্থাপনা ধ্বংস হয়ে গেছে। এপ্রিলে হোমস প্রদেশের কাছে একটি বিমানঘাঁটিতে হামলার জন্য ইসরাইলকে দায়ী করা হয়। অধীকৃত গোলান উপত্যকায় ড্রোন পাঠানোর অভিযোগে সিরিয়ায় ইরানের স্থাপনা লক্ষ্য করে ইসরাইল। তারা ওই স্থাপনাকে লক্ষ্য করে এফ-১৬ যুদ্ধবিমান পাঠায়। কিন্তু সিরিয়ার সেনাবাহিনী তা গুলি করে ভূপাতিত করে। উল্লেখ্য, গত এক বছরে সিরিয়ার ভিতরে বহুবার হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। এখানে উল্লেখ্য, সিরিয়ার সঙ্গে ইসরাইল কৌশলগত দিক দিয়ে এখনও একরকম যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যে আছে। যদিও ২০১১ সাল থেকে তাদের সীমান্ত এলাকা মোটামুটি শান্ত রয়েছে। বুধবার রাতের হামলা নিয়ে ইসরাইলি সেনা মুখপাত্র কনরিকাস বলেছেন, হামলা চালানোর আগে রাশিয়াকে এ বিষয়ে জানানো হয়েছে। ইরানের বিরুদ্ধে চালানো এটা হলো সাম্প্রতিক বছরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বৃহৎ সামরিক অপারেশন।

মতামত...