,

মিয়ানমার থেকে ইয়াবার পাশাপাশি আসছে মদ ও বিয়ার : টেকনাফ হেচ্ছারখালে অভিযান চালিয়ে ১৭২০ ক্যান বিয়ার জব্দ

মোঃ আশেক উল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ ::

নাফ নদীতে সম্প্রতি মাদক চোরাচালান তৎপরতা বৃর্দ্ধি পেয়েছে। জিরোপয়েন্ট জ্বলযান কার্যক্রম ঝিমিয়ে পড়ায় মাদক ব্যবসায়ী ও পাচারকারীদের জন্য এক নিয়ামকে পরিনত হয়েছে।
সীমান্ত রক্ষীদের চোখ ফাঁকি এবং অত্যাধূনিক স্বয়ংক্রিয় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে চিহ্নিত
চোরাইপয়েন্ট দিয়ে মরণ নেশা ইয়াবার পাশাপাশি সমানতালে ঢুকছে আন্দামান বিয়ারের
চালান। টেকনাফ পৌর শহর সীমান্ত ফাঁড়ির কোম্পানী কমান্ডার মোঃ ইব্রাহীম জানায়,
গোপন সংবাদের ভিক্তিতে ২৭ এপ্রিল রাত ১১ টায় হাবিলদার আশরাফের নেতৃত্বে একদল
বর্ডারগার্ড (বিজিবি) জোয়ানেরা মিয়ানমার থেকে মাদক অনুপ্রবেশের গোপন খবর জেনে
পৌর এলাকার হেচ্ছাখালের নাফ নদীর তীরে কেউড়া বাগানে উৎপেতে থাকা অবস্থায় ১
হাজার ৭২০ ক্যান আন্দামান বিয়ারসহ হস্তচালিত নৌকা জব্দ করে। প্রতি ক্যান বিয়ারের ২৫০
টাকা বর্তমান বাজার মূল্য নির্ধারণ করে সর্বমোট আন্দামান বিয়ারের মূল্য চার লাখ ৩০ হাজার টাকা। এসময় বিজিবির অভিযান চোরাকারবারীরা টের
পেয়ে মালামাল রেখে উপকূলের দিকে পালিয়ে যায়। অভিযানে জব্দকারী বিজিবি হাবিলদার মোঃ আশরাফ নিজে বাদী হয়ে সংশ্লিষ্ট মাদক আইনে মালিক বিহীন মামলা রুজু করে। বিষয়টি কোম্পানী
কমান্ডার মোঃ ইব্রাহীম এর সত্যতা নিশ্চিৎ করে জানায়, চলতি মাসের ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত বিজিবির পৃথক অভিযানে ১ কোটি ৫০ লাখ টাকার মূল্যে ৫০
হাজার ইয়াবা জব্দ করে থাকে। উল্লেখ্য মার্চ/১৮ মাসে স্থল ও নৌ-পথে পৃথক অভিযানে ৫৪ কোটি ৮৩ লাখ ৬ হাজার ৭শত টাকার মূল্যে ১৮ লাখ ২ হাজার ৭৯৭ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছিল।

মতামত...