,

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে চার ভাষা সৈনিককে সম্মাননা প্রদান

জসিম সিদ্দিকী : cox 21 dc

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস নিয়ে আলোচনা সভা ও জেলার ভাষা সৈনিকদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় কক্সবাজার শহীদ দৌলত ময়দানে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল ।
জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর একেএম ফজলূল করিম চৌধুরী, সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মির জাফর আহমেদ, জেলা জাসদ সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুলসহ সংশ্লিষ্টরা বক্তব্য রাখেন।
প্রধান অতিথি বক্তব্যে সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, ২১ ফেব্রুয়ারী ভাষা অন্দোলনের বিজয়ের আত্মবিশ্বাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে জাগ্রত হয়েছিল স্বাধীনতা আন্দোলনের সূত্রপাত। আর সেই মহান নেতার নেতৃত্বেই আমরা পেয়েছি স্বাধীনতা। আগে শুধুমাত্র শহীদ দিবস হিসেবে পালন করা হত এই দিনটি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো কর্তৃক আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস স্বীকৃতি লাভ করে ২১ ফেব্রুয়ারী।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, জাতীয় জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। তাই এই বাংলা ভাষা মায়ের মত আমাদের অস্তিত্বের সাথে মিশে আছে। এ ছাড়া এই ভাষা দিবসকে কেন্দ্র করেই আজ বিশ্বের কাছে শ্রদ্ধার্ঘ আমরা বাঙালী জাতি। তাই ভাষা দিবসের তাৎপর্য উপলদ্ধি করে আমাদের সকলকে এর সুষ্ঠ ব্যবহার শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে। একুশের চেতনাকে নতুন প্রজস্মের কাছে আমাদের পৌঁছে দিতে হবে।
এদিকে রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবীতে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী বিশ্বের ইতিহাসে মাতৃভাষার জন্য রাজপথে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিল সালাম, রফিক, বরকত, জব্বারসহ নাম না জানা আরও অনেক ভাষা শহীদ। দেশের অন্যান্য এলাকার পাশাপাশি কক্সবাজার জেলায়ও রয়েছে ভাষা সৈনিক। কোথায় আছে, কেমন আছে তাঁরা, তাদের খোঁজ কে রাখে? সেই বীর ভাষা সৈনিকদের খুঁেজ বের করেছেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো: আলী হোসেন এবং সম্মাননা প্রদান করেছেন। যা অনেকদিন পরে হলেও এই সম্মাননা পেয়ে অত্যন্ত আনন্দিত বীর ভাষা সৈনিকেরা। সম্ভবত: সারা দেশে এটি একটি বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। কারণ সারা দেশে জেলা পর্যায়ে কোন ভাষা সৈনিককে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে কিনা সন্দেহ। যাঁরা সম্মাননা পেলেন উখিয়ার মরিচ্যা পালং এলাকার বাদশাহ মিয়া চৌধুরী, টেহনাফের আলিয়াবাদ এলাকার হাজী মোহাম্মদ আবদুস শুকুর, কক্সবাজার বিমান বন্দর সড়ক এলাকার জালাল আহমেদ এবং রামু ফতেঁখারকুল ইউনিয়নের প্রফেসর মোশতাক আহমেদ।
এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক ) মোহাম্মদ মাহিদুর রহমান. অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইসিটি ) মুহম্মদ আশরাফ হোসেন,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট খালেদ মাহমুদ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নোমান হোসেন, জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেটবৃন্দসহ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে দিবসটি উপলক্ষে আয়োজিত রচনা, কবিতা পাঠ ও চিত্রাংকন প্রতিযোগীতার বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এরপর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

মতামত...