,

মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

গত ১১ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজারের বিভিন্ন পত্রিকা ও অনলাইন পোর্টালে “টেকনাফে এসএসসি পরীক্ষার্থী ও বিকাশ এজেন্ডাদার ছিনতাইয়ের শিকার” সহ বিভিন্ন শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদখানা আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদে আমার নাম দেখে আমি বিস্মিত হলাম। কারণ এধরনের ঘটনার সাথে আমার বিন্দু মাত্র সম্পর্ক নেই। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে বিগত ২০১০ সনের ১০ মে নোয়াখালী পাড়ার ছৈয়দুর রহমানের পুত্র মোহাম্মদ আবদুল্লাহ গংদের সাথে মোহাম্মদ হাশেম মেম্বার গংসহ আমার সাথে জমিজমা সংক্রান্ত ২ লাখ ১৭ হাজার টাকার লেননেদ রয়েছে। যাহা ২৫৫২ নং ননজুড়িশিয়াল স্ট্যাম্পমূলে একটি সংম্পূর্ণ টাকা পরিশোধের পর জমিন রেজিং দেওয়ার একরার নামা পত্র সম্পাদিত হয়। উক্ত জমি রেজিঃ না দিয়ে আবদুল্লাহ কৌশলে বিদেশ পাড়ি দেয়। কয়েক বছর পর বিদেশ থেকে আসলে জমি রেজিষ্ট্রির কথা বললে আজ দেব, কাল দেব বলে তাল বাহনা করতে থাকে। এভাবে আজ অবধি টাকা পরিশোধ বা জমি রেজিষ্ট্রি দেয়নি। উক্ত পাওনা টাকা না দিতে হঠাৎ করে এধরনের সাজানো নাটকীয়তা অবতারণা করে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সংবাদ ছাপিয়েছে। আমি উক্ত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং সংশ্লিষ্ট মহলকে মিথ্যা, বানোয়াট ও অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি। পাশাপাশি সংবাদকর্মী ভাইদের প্রতি অনুরোধ থাকবে ভবিষ্যতে কারো বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশনের সময় সঠিক তথ্য জেনে এবং অভিযুক্ত ব্যক্তির বক্তব্য নিয়ে সংবাদ পরিবেশন করার।
প্রতিবাদকারীআবুল কাশিম প্রকাশ ডবল কাশিম, সাং- হাতিয়ারঘোনা, টেকনাফ সদর ইউনিয়ন।

মতামত...