,

স্বাগত ২০১৬, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ

images
নতুন বছরের নতুন দিন।  অর্থাৎ আজ শুক্রবার । মহাকালের চিরন্তন গতি প্রবাহে বিগত হয়ে গেলো আরো একটি বছর। শুরু হলো ইংরেজি নতুন বছর-২০১৬। নতুনের প্রতি মানুষের সব সময় থাকে বিশেষ আগ্রহ। থাকে উদ্দীপনা। আর নতুনের মধ্যেই তো নিহিত থাকে অমিত সম্ভাবনা। আর সেই সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দিতে সুযোগ করে দেবে নতুন বছর। নতুন কিছুর পত্যাশায় স্বাগত ২০১৬। আলোনিউজ২৪ ডটকমের অগণিত পাঠক, শুভানুধ্যায়ী এবং বিজ্ঞাপনদাতা প্রতিনিধি এবং ফেসবুক বন্ধুদের প্রতি রইলো নতুন বছরের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

বিশ্বাসী পা রাখলো নতুন একটি বছর। বিগত বছরের নানা ঘটনা থেকে আমাদের শিক্ষা নিয়ে নতুনটি বছরটি পার করতে হবে। ২০১৫ সালটা শুরু হয়েছিল অস্থিরতায়। ঠিক এক বছর আগে যেভাবে আমরা তার আগের বছরের দিনগুলোর দিকে ফিরে তাকিয়েছিলাম, আশা-প্রত্যাশার সঙ্গে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসাব মেলাতে চেষ্টা করেছিলাম, ব্যর্থতা ও অপ্রাপ্তিগুলো পূরণের জন্য নতুন আশা ও স্বপ্নে মনকে উজ্জীবিত করেছিলাম, আজও আমাদের মন তা-ই করতে চায়।

তবে নতুন বছরটায় সেটি নেই। যদিও সর্বশেষ পৌর নির্বাচনকে ঘিরে রাজনীতি কোন দিকে যায় সেটি নিয়ে রয়েছে উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা।

তবে আর যাই হোক, নতুন বছরের সুন্দর সূর্যের সঙ্গে একটি সুন্দর দিন উদযাপন করবে স্কুলপড়ুয়া শিশু-কিশোররা। এদিন বই উৎসব করে তুলে দেয়া হয় নতুন বই। নতুন বইয়ের গন্ধে শুরু হবে তাদের নতুন দিন।

জঙ্গিবাদী তৎপরতা আগের বছর নিয়ন্ত্রণে ছিল। কিন্তু ২০১৫ সালে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে বেশ কিছু নতুন জঙ্গি সংগঠন। কূটনীতিক অঙ্গনে স্বস্তি থাকলেও কিছুটা শঙ্কা রয়েছে।

তবে সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে সরকার। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম কিছুটা সহনীয়। যদিও বিনিয়োগ নিয়ে শঙ্কা দূর হয়নি। পর্যাপ্ত সম্পদ থাকার পরও বিনিয়োগ হয়নি।

কক্সবাজারে বিশেষ করে সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে গেল বছর পার করেছে অস্থিরতার মধ্য দিয়ে। যেমন বন্দুকযুদ্ধ, মানবপাচার, ইয়াবা সর্বাগ্রে। সব কিছুর মধ্যেও মানব পাচার প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বিরাট ভুমিকা পালন করেছে। তারা এখনো তা অব্যাহত রেখেছে। আমরা মানবাধিকারের দৃষ্টিকোণ থেকে জোর দিয়ে বলছি, বন্দুক যুদ্ধের পরিবর্তে আইনের সঠিক বাস্তবায়ন কামনা করছি। ইয়াবার বড় বড় চালান ধরা পড়লেও ইয়াবা ব্যবসায়ীর সংখ্যা কমেনি। সংশ্লিষ্টদের তা বের করে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনার জোর দাবী করছি। ব্যবসায়ীদের সরকারী হিসেবের আওতায় এনে অবৈধ সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার দাবী করছি।

এসব বাস্তবতার সঙ্গে নিয়েই আমরা আরো এক নতুন বছরে। আমরা সব সময় আশাবাদী। আমরা স্বপ্ন দেখি সামনের দিনগুলো সুন্দর হবে। নতুন বছরে আমাদের প্রত্যাশা,  গণতন্ত্র চর্চা, মানবাধিকারের উন্নতি, রাজনৈতিক ক্ষেত্রে জনকল্যাণের বিষয়টি গুরুত্ব পাবে, বৈরিতার পরিবর্তে সহযোগিতার সম্পর্ক সৃষ্টি হবে।

আমরা এগিযে যাবো। এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*