,

টেকনাফে মূলী বাঁশের দাম আকাশ ছোঁয়া

আবুল কালাম আজাদ,টেকনাফ []download
টেকনাফে মূলী বাঁশের দাম আকাশ ছোঁয়া হওয়ায় দরিদ্র ও নিম্ম আয়ের পরিবারে সমস্যার অন্ত নেই। দাম বৃদ্ধির এক মাত্র কারন বাশঁ ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট। বাশঁ বাজার সরেজমিনে পরির্দশন করে দেখা যায়, মিয়ানমার থেকে নাফ নদী পার হয়ে লক্ষ লক্ষ মূলী বাশঁ বাংলাদেশে পার হচ্ছে। বাংলাদেশের টেকনাফে অবস্থিত নাফ নদীর শাখা নদী সমূহে মিয়ানমারের বাশেঁ পরিপূর্ন। কিন্তু দাম আকাশ ছোঁয়া। ছোট পানের বরজের বাশঁ বিক্রয় হচ্ছে শত প্রতি ৩ হতে ৪ হাজার টাকা মধ্যম ৪ হতে ৫ হাজার টাকা,বড় ৫ হতে ৬ হাজার টাকায়। যা দরিদ্র লোকজনদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। এ বিষয়ে বাশঁ ক্রয় করতে আসা পৌরসভার ইউছুপ, শফি, কামাল ও রফিক জানায় প্রতিটি বাশেঁর দোকানে একই দর। কারন বাশঁ ব্যবসার সাথে যারা জড়িত সবাই সিন্ডিকেট করে মূল্য বৃদ্ধি করেছে এবং গলা কেটে টাকা নিচ্ছে। এদিকে বাশঁ ব্যবসায়ী হোসন, আলী আহাম্মদ, শফিক জানায় মিয়ানমারে বাশেঁর দাম অস্বভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ঐখান থেকে ক্রয় করে বাংলাদেশে এনে কাষ্টম ট্যাক্স, ভ্যাট, হাসিল ও বিভিন্ন সংস্থা ও দোকান ভাড়া ইত্যাদি দিতে দিতে বাশেঁর দাম বৃদ্ধি পায়। আমরা কেহই সিন্ডিকেট করিনি। এব্যপারে এলাকার দরিদ্র লোকজন বাশেঁর দাম স্বাবিক পর্য্যায়ে রাখার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*