,

অবরোধ-হরতালে টেকনাফ স্থল বন্দরের বানিজ্যে স্থবির

আবুল কালাম আজাদ, টেকনাফ []teknaf port
চলমান হরতাল অবরোধের ফলে টেকনাফ স্থল বন্দরের ব্যবসা বানিজ্য স্থবির হয়ে পড়েছে। এতে দৈনিক ক্ষতি হচ্ছে প্রায় কোটি টাকা।
ব্যবসায়ী সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিন গড়ে ১০/১৫ টাকা ক্ষতি হচ্ছে ব্যবসায়ীদের। হরতাল অবরোধের কারণে টেকনাফ স্থল বন্দরের আমদানী রপ্তানী প্রায় বন্ধ হয়ে পড়েছে। কারণ ব্যবসায়ীরা জানায়, আমদানী পন্য রাখার অভ্যন্তরে চালান, বন্দরের খরচ ও ভ্যাট ইত্যাদি দিয়ে মালামাল দেশের অভ্যন্তরে নিয়ে গেলে সেখানে বিক্রি হচ্ছে না। যতসামান্য বিক্রি হলেও আমদানী খরচের চেয়ে বিক্রি প্রায় অর্ধেক। যার ফলে ক্রয়ের চেয়ে বিক্রিমূল্য কম হওয়ায় পাহারড় পরিমাণ ক্ষতির সামাল দেওয়া মোটেই সম্ভব নয়। ফলে বন্দরে নিয়োজিত শতাধিক আমদানী-রপ্তানীকারক ব্যবসা না করে বসে রয়েছে।

এদিকে বন্দরে নিয়োজিত কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানায়, আমদানী-রপ্তানীকারক ব্যবসা না করায় প্রতিদিন গড়ে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। এদিকে বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায় আমদানী রপ্তানী বন্ধ থাকায় আমাদের কর্মচারী সরকারী বিভিন্ন রাজস্ব প্রদানে খুবই সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। এর পাশাপাশি বন্দরে নিয়োজিত শত শত শ্রমিক বন্দরের কাজ বন্ধ থাকায় তাদের সংসারে নেমে এসেছে অভাব ও হতাশার চিহ্ন। অনেক শ্রমিক পরিবার অর্ধাহারে-অনাহারে দিনযাপন করছে বলে শ্রমিকরা জানায়।

বন্দর পরিদর্শন করে দেখা যায়, হরতাল অবরোধের কারণে শত শত মাল বোঝাই ট্রাক বন্দরে অপেক্ষামান রয়েছে। ইহা ছাড়া বন্দরে আমদানীকৃত খালাশকৃত ও অখালাশকৃত পন্যের পাহাড়। অনেক পন্য দিনের বেলার প্রচন্ড গরমে আকাশের নিচে নষ্ট হচ্ছে। অর্থাৎ হরতাল অবরোধের কারণে বন্দরের স্থবিরতা নেমে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*